নেমেই চলেছে পেট্রোলের দাম। এক টাকা কম না  হলেও গত তিন দিনে পর পর বেশকিছু পয়সা নেমেছে পেট্রোলের দাম। মনে করা হচ্ছে, এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখলে আগামী দিনে ফের ৭২ টাকায় পৌঁছে যাবে পেট্রোলের মূল্য। শনিবার আরও ১২ পয়সা কমে ৭২গামী কলকাতায় পেট্রোলের দাম।

করোনা ভাইরাস আতঙ্ক, মাস্কের কালোবাজারি রুখতে কড়া পদক্ষেপ পুলিশের

দিল্লি নির্বাাচনের আগে সেভাবে বাড়েনি  জ্বালানির মূল্য। কিন্তু নির্বাচন শেষ হতেই রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল ,ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি হতে থাকে। যা নিয়ে শোরগোল তুলে দিয়েছিল বিরোধীরা। সবাই বলতে থাকেন, মোদী সরকার জেনে বুঝেই নির্বাচনের আগে দাম বাড়তে দেয়নি। পাছে রাজধানীর  ভোটারদের মধ্য়ে প্রভাব পড়ে। কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল, বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির সেই বক্তব্য়ের কোনও যৌক্তিকতা নেই। 

আশার আলো দেখাল স্টেট ব্যাঙ্ক, ইয়েস ব্যাঙ্কের ৪৯ শতাংশ 'শেয়ার' কিনছে এসবিআই

কারণ দিল্লি নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরও ধারাবাহিকভাবে কমে চলেছে জ্বালানির  দাম।  বিগত তিন চার দিন ধরে লাফিয়ে কমতে শুরু কমে পেট্রোলের দাম। যা বৃহস্পতিবার আরও কমে হয় লিটার প্রতি ৭৩.৯৬টাকা। শুক্রবার পেট্রোলের দাম লিটার প্রতি ৭৩.৮২ টাকা। বৃহস্পতিবারের তুলনায় এদিন দাম কমেছে ১৪ পয়সা। শনিবার পেট্রোলের দাম ৭৩.৭০ তাকা। শুক্রবারের তুলনায় কমেছে ১২ পয়সা।

আজও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা, দোলের দিন পরিষ্কার থাকবে আকাশ

বুধবার কলকাতায় পেট্রোলের দাম ছিল লিটার প্রতি ৭৪.১১ টাকা। হত ২৭ ফেব্রুয়ারি পেট্রোলের দাম ছিল ৭৪.৬০ টাকা। এরপর ২৮ তারিখেও একই দাম ছিল। ২৯ তারিখ সাত পয়সা দাম কমে ৭৪.৫৩তে নামে মূল্য। পরে ১ মার্চ ১৫ পয়সা দাম কমে ৭৪.৩৮-এ চলে আসে পেট্রোলের মূল্য। ২ মার্চ ২২ পয়সা দাম কমে পেট্রোলের দাম হয় ৭৪.১৬ টাকা। তিন তারিখ দাম আরও কমে হয় ৭৪.১১ টাকা। 

শনিবার কলকাতায় ডিজেলের দাম ৬৬.০২ টাকা। শুক্রবার কলকাতায় ডিজেলের দাম ছিল ৬৬.১৪ টাকা। দাম কমেছে ১২ পয়সা। বৃহস্পতিবার কলকাতায় ডিজেলের দাম ছিল ৬৬.২৭ টাকা। বুধবার দাম ছিল ৬৬.৩৬ টাকা। বৃহস্পতিবার দাম কমেছিল ৯ পয়সা। পেট্রোল ডিজেল উভয়ের একসঙ্গে দাম কমায় গাড়ি ব্যাবহারকারীদের মুখে কিছুটা স্বস্তির হাসি। মনে করা হচ্ছে, শীঘ্রই এই দাম আরও কমতে শুরু করবে। ফলে মুখে হাসি  ফুটবে গ্রাহকদের।