আগেই আশ্বাস দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। এবার রাষ্টায়ত্ত  ব্যাঙ্ক এসবিআই-এর মুখেও শোনা গেল একই কথা। ইয়েস ব্যাঙ্কের পরিস্থিতি সামলাতে তাদের ৪৯ শতাংশ শেয়ার নেওয়ার সিদ্ধান্ত  নিয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। 

আজও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা, দোলের দিন পরিষ্কার থাকবে আকাশ

এক দিকে ব্যঙ্কের মূল কান্ডারিকে ইডি-র জিজ্ঞাসাবাদ , অন্যদিকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের হস্তক্ষেপ। সব মিলিয়ে ইয়েস ব্যাঙ্কের অর্থনৈতিক স্থিরতা সামলাতে দেরি  করল না মোদী সরকার। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীরমনের পথে হেঁটেই এবার ইয়েস ব্যাঙ্কে অংশিদারিত্ব নিতে চলেছে স্টেট ব্যাঙ্ক। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছে,আপাতত 'ড্রাফট কনস্ট্রাকশন স্কিম' অনুযায়ী ইয়েস ব্যাঙ্কের দায় নেবে স্টেট ব্যাঙ্ক। সেই অনুযায়ী ইয়েস ব্যাঙ্কের ৪৯ শতাংশ মালিকানা পেতে ২৫০০ কোটি টাকার ড্রাফট দেবে এসবিআই। মূলত, সমস্যায় পড় ব্যাঙ্ককে বাঁচাতেই  এই উদ্য়োাগ নিয়েছে এসবিআই।

বেনজির অসভ্যতা, বিতর্কিত বসন্তোৎসবের দায় নিয়ে পদত্যাগ রবীন্দ্রভারতীর উপাচার্যের

এ বিষয়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন, ৩০ দিনের মধ্য়ে চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার কথা থাকলেও আগামী ৯ মার্চের মধ্য়ে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। এ বিষয়ে কোনও সমস্যা হলে তা এই নির্ধারিত সময়ের মধ্য়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছে জানাতে বলা হয়েছে। সূত্রের খবর, প্রথম থেকেই ইয়েস ব্যাঙ্কের সঙ্গে এসবিআইকে জুড়ে দেওয়ার ঘোরতর বিরোধী রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। এতে সরকারি কোষাগারে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন অর্থনীতিবিদরা। তাঁদের মতে, বার বার কোনও কোন বেসরকারি ব্যাঙ্ক বিপদে পড়লে তার দায়িত্ব  রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যঙ্ককে নিতে হবে। যার ফলে সরকারের অর্থভাণ্ডারে কুপ্রভাব পড়বে। 

'সাত মাস ধরে যা দেখেছি, তাই জানিয়েছে', দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক রাজ্যপালের

এক্ষেত্রে তাই দুই ব্যাঙ্ককে মিলিয়ে না  দিয়ে তা অংশীদারিত্ব  কেনাকেই শ্রেয় বলে মনে করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। মূলত, ইয়েস ব্যাঙ্কের বিপুল গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কদিন আগেই ইয়েস ব্যাঙ্ক নিয়ে চিন্তা শুরু হয় আরবিআই-এর অন্দরে। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মোরটোরিয়াম নিয়ে চিন্তায় পড়ে যায় আন্তর্জাতিক রেটিং সংস্থা মুডিজ। ফলে সিএএ১ থেকে সরিয়ে ইয়েস ব্যাঙ্ককে বি২ রেটিং দেওয়া হয়। 

এর আগে সংবাদিক বৈঠকে নির্মলা সীতারমন বলেন, আগামী এক বছর পর্যন্ত ইয়েস ব্যাঙ্কের কর্মীদের চিন্তার কোনও কারণ নেই। এই সময় তাঁরা তাঁদের বেতন পাবেন। গ্রাহকদের টাকা সুরক্ষিত রয়েছে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন নির্মলা। আরবিআই একটি নোটিশ জারি করে টাকা তোলার উর্দ্ধসীমা ৫০ হাজারে বেঁধে দিয়েছে।  তবে বিশেষ ক্ষেত্র পাঁচ লক্ষ টাকা তোলা যাবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি আগামী ৩ এপ্রিল পর্যন্ত  এই ব্যাঙ্ক কোনও ঋণ দিতে পারবে না বলেও জানিয়েছে। ৩০ দিনের জন্য এই নির্দেশ কার্যকর থাকছে বলেও জানান হয়েছে।  এই পরিস্থিতিতে যথেষ্টই উদ্বেগে রয়েছেন ব্যাঙ্কের গ্রাহক ও কর্মীরা।