রুশি পাঁজা: সরকারি আবেদনে আদৌ কাজ হবে তো? করোনা আবহে এবার বাজি পোড়ানোয় নিষেধাজ্ঞা জারির আর্জি জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হল কলকাতা হাইকোর্টে। বৃহস্পতিবার মামলাটির শুনানি হতে পারে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে শান্তি বজায় রাখার বার্তা রাজ্যে, বাজি পোড়ানো থেকে বিরত থাকার আবেদন

এবছর করোনা আতঙ্কে কার্যত দফারফা হয়ে গিয়েছে দুর্গাপুজোর। জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্যে সমস্ত মণ্ডপকে দর্শকশূন্য রাখার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। এবার কালিপুজো নিয়েও মামলা গড়াল আদালতে। দুর্গাপুজোয় নিয়ে যিনি জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন, তিনি আবার হাইকোর্টে বাজি পোড়ানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারির আবেদন জানালেন। স্রেফ কালিপুজোই নয়, ছটপুজো-সহ অন্যন্য উৎসবের সময়েও রাজ্যের সর্বত্রই বাজি বিক্রি বন্ধ রাখার আর্জি জানিয়েছেন মামলাকারী। তিনি  চান,  করোনা অতিমারীর কারণে বাজি তৈরি না করা হয়, সে বিষয়েও নির্দেশ দিক হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন: প্রবল বিস্ফোরণে ছিন্ন ভিন্ন হয়ে গেল ঠিককর্মীর দেহ, ডিপিএলের কাজে আশঙ্কাজনক আরও ১

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতিতে এবছর আতশবাজির ব্য়বহার বন্ধ করার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন চিকিৎসকদের একাংশও। তাঁদের বক্তব্য, এই বাজির মাধ্যমে সহজেই মানুষের শরীরের প্রবেশ করতে পারে করোনাভাইরাস। তার উপর বাজির পোড়ানো হলে বাতাসে দূষণের মাত্রা বাড়বে। সেক্ষেত্রে করোনা আক্রান্তদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা আরও বাড়বে।  মঙ্গলবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে সংযতভাবে কালীপুজো পালন করার আবেদন জানিয়েছেন রাজ্য়ের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ও।  বাজি ব্যবহার না করারও অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।