কৌশিক সেন, রায়গঞ্জ: চোপড়াকাণ্ডে পুলিশ ও প্রশাসনের ভূমিকার প্রতিবাদ, ওই কিশোরীর খুনের দোষীদের শাস্তি ও বেছে বেছে দলের কর্মীদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিজেপির পক্ষ থেকে রায়গঞ্জ শহরের জেলা কার্যালয়ের সামনে চলতে থাকা ধর্নামঞ্চ এদিন পুলিশ খুলে দেয়।এদিন দুপুর ২ টো নাগাদ দলের রাজ্য সহ সভাপতি রাজু বন্দ্য়োপাধ্যায় ওই ধর্নামঞ্চে উপস্তিত থাকার কথা ছিল।ঠিক তার আগেই বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে ধর্নামঞ্চের মাইক খোলার নির্দেশ দেয়।

প্রাথমিকভাবে বিজেপির পক্ষ থেকে তার প্রতিবাদ করা হলেও পুলিশ তাদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে।পুলিশ আধিকারিকরা নিজেরা দাড়িয়ে থেকে মঞ্চ খুলতে বাধ্য করে।তার কারণ অবশ্য পুলিশ জানায়নি।বিজেপির জেলা সম্পাদক বাসুদেব সরকার জানিয়েছেন, " পুলিশ ও প্রশাসনের পক্ষপাতিত্ব ও চোপড়ার ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল থেকেই আমাদের এই ধর্না চলছিল। আজ রাজ্য সহ সভাপতির মঞ্চে আসার আগেই পুলিশ কোনও কারণ না দেখিয়ে জোর করে আমাদের ওই মঞ্চ খুলতে বাধ্য করে।এই ধর্নামঞ্চের ব্যাপারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের মৌখিক অনুমতি নেওয়া ছিল।"
 
পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন, " এই সময় কোনও রকম রাজনৈতিক ধর্না বা রাজনৈতিক কর্মসূচি করার অনুমতি নেই।স্বাভাবিকভাবেই তারা তা পায়নি।এই কারণেই ওই ধর্নামঞ্চ সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরে রায়গঞ্জ শহরে দলের জেলা কার্যালয়ের সামনে ধর্নামঞ্চ পুলিশ খুলে দেবার পর দলের রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জি জেলা কার্যালয়ে এলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।