যুবকের পর এবার মহিলা। হোওয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপে করোনা আক্রান্ত নিয়ে গুজব ছড়ানোয় গ্রেফতার করা হয়েছে ওই মহিলাকে। নিউ আলিপুর এলাকায় ব্লক পিতে ১৫ জন করোনা পজিটিভ বলে শেয়ার করেন অভিযুক্ত। পাশাপাশি রাজ্য প্রশাসন এই খবর চেপে রাখতে চাইছে বলেও ছড়ানো হয় গুজব। একটি বেসরকারি স্কুলের নামে চলে গ্রুপ। সেই স্কুলের স্মার্ট জুনিয়র হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেই এই বিভ্রান্তি ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ পেয়ে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে গতকাল নিউ আলিপুর থানার পুলিশ। আজ তাকে আলিপুর আদালতে তোলা হবে। পুলিশের কাছে এই জন্য় ক্ষমা চেয়েছেন অভিযুক্ত।

ভবানীপুরের বহুতলে বিধ্বংসী আগুন,দম বন্ধ হয়ে বহু লোকের আটকে পড়ার আশঙ্কা

বার বার সতর্ক করেও কোনও লাভ হয়নি। করোনা নিয়ে গুজব না ছড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন রাজ্য় সরকার। কলকাতার পুলিশ কমিশনারও এ নিয়ে সবাইকে সতর্ক করেছেন। এই ধরনের গুজব ছড়ালে গ্রেফতার হতে হবে। সম্প্রতি এই কথা বহুবার বলা হয়েছে সোশ্য়াল মিডিয়ায়। নিজে মুখ্য়মন্ত্রী গুজবের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর কথা বলেছেন। কিন্তু দেখা গেল, সেউ কথায়া কান দেননি।

রাজ্যে আরও এক করোনা আক্রান্তের হদিশ,সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ২২.

কদিন আগেও সেই একই ঘটনা ঘটে ব্য়ারাকপুরে। করোনা ভাইরাস নিয়ে ভুয়ো পোস্টের জেরে গ্রেফতার করা হয়েছে কাঁকিনাড়ার এক যুবককে। অভিযোগ, ফেসবুকে এক যুবকের ছবি দিয়ে তাকে করোনা আক্রান্ত হিসাবে দেখিয়েছে অভিযুক্ত। শুধু ওই যুবকই নয়, তাঁর সন্দেহের তালিকায় ছিল ওই যুবকের পরিবারও। যার জেরে যুবক সহ ওই সন্দেহভাজন পরিবারের সদস্যদের অ্যাম্বুলেন্সে করে স্থানীয় হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে নিয়ে যায় স্বাস্থ্য কর্মীরা। যদিও সন্দেহভাজন ওই যুবক সহ তার পরিবারের সদস্যরা কেউই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আক্রান্ত হয়নি বলে জানিয়ে দেন ডাক্তাররা।

আজ খোলা থাকছে সব ব্যাঙ্ক, লকডাউনেও মিলবে স্বাভাবিক পরিষেবা

যুবকের অতি উৎসাহী সন্দেহের শিকার হতে হয়েছে এক পরিবারকে। ইতিমধ্য়েই ওই যুবকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্য়বস্থা নিয়েছে প্রশাসন। ফেসবুকে পোস্ট করে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে যুবককে। উত্তর ২৪ পরগনার কাঁকিনাড়া এলাকা থেকে ওই যুবককে গ্রেফতার করে ভাটপাড়ার থানার পুলিশ।