আক্রান্ত হাবড়া থানার এক এসআই  সহ এক কনস্টেবল। লোহার রড দিয়ে এসআইয়ের মাথা ফাটিয়ে দেবার অভিযোগ উঠেছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। পুলিশ সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রীর নামে কুরুচিকর মন্তব্য্ করায়  হাবড়া কৈপুকুরের এক যুবকের বিরুদ্ধ অভিযোগ জমা পড়ে থানায়।  

সোমবার থেকে চলবে সব বাস, সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্য়ে সাতটা পর্যন্ত পরিষেবা.

সেইমতো শুক্রবার রাতে হাবড়া থানার এসআই রাখোহরি ঘোষ সহ কয়েকজন কনস্টবল তার বাড়িতে তদন্তে যান । আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে পুলিশের সাথে অশান্তিতে জড়িয়ে পরে অভিযুক্ত যুবক অমিত রায় ও তার বাবা অমর রায় । অভিযোগ এরপরই পুলিশের ওপর আক্রমণ করে তারা। মাথা ফেটে যায় এস আই রাখোহরি ঘোষের এবং হাত চোট পায় কনস্টবল অভিজিৎ ঘোষ। 

রাজ্যে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ২৫৭৬, নতুন করে সংক্রমিত ১১৫..

সাথে সাথে অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেফতার  করা হয়। দুই পুলিশ কর্মীকে হাবড়া হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।ঘটনায় হাবড়ার তৃণমূল নেতা নিলিমেশ দাস জানান বাংলার শান্তি-শৃঙ্খলা নষ্ট করার জন্য বিজেপি চেষ্টা করছে । আমরা নির্দিষ্ট অভিযোগ করেছি, দোষীদের সর্বোচ্চ সাজা হোক। পুলিশকেও খুনের চেষ্টা করেছে। 

এনিয়ে বিজেপি নেতা বিপ্লব হালদার জানান পুলিশের গায়ে হাত দেওয়া টা নিন্দনীয় অপরাধ । তবে এই ছেলেটি কি সমাজবিরোধী? না কোনও জঙ্গি যে মাঝরাতে তার বাড়িতে হানা দিতে হবে পুলিশকে ? এক সিভিক ভলেন্টিয়ার গিয়ে এই পরিবারের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে তার পরেই গন্ডগোল বাদে ।ধৃত তাদের দলীয় কর্মী স্বীকার করেন বিপ্লব বাবু ।