এবার করেনা ভাইরাসের আতঙ্ক দেখা দিল প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে। এক বন্দির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল সংশোধনাগারে। সূত্রের খবর, করোনার উপসর্গ নিয়ে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে মারা গিয়েছে প্রেসিডেন্সির এক বন্দি। এখনও এই বন্দির কোভিড পরীক্ষার রিপোর্ট আসেনি। তার আগেই মৃত্যু হয়েছে বন্দির।

রাজ্যে চালু হচ্ছে হকার্স মার্কেট, বড় দোকানগুলোকেও ছাড়পত্র মুখ্য়মন্ত্রীর.

ওই বন্দির রিপোর্ট পজিটিভ এলে এবার জেলের অন্দরেও করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা প্রবল। এ ব্যাপারে যদিও প্রেসিডেন্সি জেল কর্তৃপক্ষ মুখ খোলেনি। সরকারি ভাবে বন্দির বিষয়ে জানানো হয়নি এখনও। 

টাকা চান অথচ হিসেব দেন না মুখ্য়মন্ত্রী, দিদিকে খোঁচা দিলীপের
 
সূত্রের খবর, প্রেসিডেন্সি জেলের ওই বন্দির নাম তুষার দাস। কিছুদিন ধরেই জ্বর ও শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছিল ওই বন্দি। বার বার তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা হচ্ছিল পরে তাকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  শরীরে নোভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ দেখা দিলে তড়িঘড়ি তাঁকে পাঠানো হয় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেই করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয় তাঁকে। সেখানেই মারা যায় ওই বন্দি।

লকডাউন ফোর-এ বড় ঘোষণা, রাজ্য়ে সেলুন-বিউটি পার্লার খোলার অনুমতি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী.

জানা গিয়েছে, শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় মেডক্যাল কলেজে ওই বন্দি লাইফ সাপোর্ট দিতে হয়। কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হয়নি। সোমবারই তাঁর মৃত্যু হয়। তুষারের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হলেও এখনও সেই রিপোর্ট হাতে আসেনি চিকিৎসকদের। .তার আগেই থরহরিকম্প পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে।