সকালে সংঘাত ছেড়ে সংসারের বার্তা দিয়েছিলেন স্বয়ং দলের রাজ্য সভাপতি। কিন্তু রাত গড়াতেই বাড়ল সমস্যা। মুকুলের সঙ্গে বৈঠক সেরে শোভন জানালেন,তাঁরা যে দলে থাকছেনই এমনটা ভাবা ঠিক নয়।

মঙ্গলবার কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে নব্য বিজেপির সদস্য শোভন বলেন,' যে সমস্য়া তৈরি হয়েছিল, সে সমস্যা নিয়ে মুকুল রায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। উনি আশ্বাস দিয়েছেন , এ বিষয়ে পর্যালোচনা করবেন। তবে যেরকম জল্পনা করা হচ্ছে, সব সমস্যার সমাধান হয়ে গেছে। এরকম ধারণা করাটা সত্য়ের অপলাপ হবে।'

আরও পড়ুন :দেবশ্রী নিয়ে শর্ত মানবেন না, শোভন- বৈশাখীকে সাফ বার্তা দিলেন দিলীপ

আরও পড়ুন :তাঁর বিরুদ্ধে কুরুচিকর মিম , সাইবার সেলে অভিযোগ বৈশাখীর

দলে প্রথম থেকেই দেবশ্রী রায়ের যোগদান নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিলেন শোভন বৈশাখী । এদিন দিল্লি থেকে কলকাতা ফিরে নিজের অবস্থানেই অনড় থাকেন নব্য বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন,'দেবশ্রী রায় নিয়ে মুকুল রায়ের সঙ্গে আগেই তাঁর কথা হয়েছে।দিল্লিতে দলের কার্যকরী সভাপতি জেপি নাড্ডার সামনেই সেকথা হয়েছে। তখনই আমি পরিষ্কার করে দিয়েছিলাম। দেবশ্রী রায় আমার পরিবারের বিষয়ে যেভাবে জড়িয়ে পড়েছিল, তাতে তাঁর সঙ্গে একই জায়গায় থেকে দল করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়।'
 
ঘটনাক্রমে এদিনই দেবশ্রী রায়ের দলে যোগদান নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করে দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।তিনি বলেন,দলে কাকে দলে নেওয়া হবে, কাকে নেওয়া হবে না, তা রাজ্য সভাপতি হিসাবে তিনি ঠিক করার অধিকার রাখেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে শোভন বলেন,এটা ঠিক যে দলে কোনও পদ বা ঠিক কীভাবে কাজ করব তা নিয়ে আমরা কোনও শর্ত দিইনি। তবে রায়দিঘির বিধায়ক হিসাবে দেবশ্রী রায়ের যোগদান নিয়ে প্রথম থেকেই বিষয়টা দলের কাছে জানিয়ে এসেছি। এ বিষয়ে দলের রাজ্য সভাপতিও জানেন।
সম্প্রতি অমার্যাদার অভিযোগ তুলে দল ছাড়তে চান শোভন-বৈশাখী। সোমবার দিল্লিতে মুকুল রায়ের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে তাঁদের। এরপরই দলের অন্দরে দিলীপবাবুর সঙ্গে সম্পর্কের বরফ গলেছে বলে মনে করেন রাজধানীর রাজনীতিকরা। কিন্তু মঙ্গলবার কৃষ্ণনগরের চা চক্রে দেবশ্রী নিয়ে মন্তব্য় করে সেই বিতর্কে হাওয়া দেন স্বয়ং বিজেপি সভাপতি। তবে সংঘাতের পাশাপাশি দিলীপ ঘোষর মুখেও শোনা যায় 'সংসারের বার্তা'। দলে শোভন-বৈশাখীর সমস্যা প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেন, 'নতুন পরিবেশে আসার পরে সবারই মানিয়ে নিতে সমস্যা হয়। নতুন বউ বাড়িতে এলেও তো মানিয়ে নিতে সময় লাগে। আমাদের মনও বড়, পার্টিও বড়। মুকুলদা নিজের দায়িত্ব পালন করেছেন। এই সমস্ত সমস্যা মিটে যাবে।'

আরও পড়ুন : মান ভাঙালেন মুকুল, বিজেপি-তেই থাকছেন শোভন- বৈশাখী

আরও পড়ুন : স্পিকারের কাছে অভিযোগ,সাংসদের ওপর আইপিএস কিনা জানবেন অর্জুন

যদিও দিলীপবাবুর এই কথা শুনেও সমস্য়া জিইয়ে রাখেন স্বয়ং শোভন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন,উনি যা বলেছেন ঠিকই বলেছেন। সভাপতি হিসাবে উনি কী করে এই সমস্যা সামাধান করবেন সেটা তাঁর বিষয়। তবে সমস্যা হ্যান্ডেল করতে গিয়ে যদি নতুন লোকের কাছে ভুল বার্তা চলে যায়,তাহলে নতুন লোকের পক্ষে তা গ্রহণ করার সমস্যা তৈরি হয। সেই জায়গাতেই সমস্য়া তৈরি হয়েছিল। তাই মুকুলদার সঙ্গে কথা হয়েছে। 

তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী রায়কে দলে নেওয়া নিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তি রয়েছে। দলীয় নেতৃত্ব তাঁরা জানিয়ে দিয়েছেন, দেবশ্রীকে দলে নিলে তাঁরা বিজেপি ছাড়বেন। মূলত তাঁদের আপত্তিতেই দিল্লিতে গিয়েও বিজেপি-তে যোগ দিতে পারেননি দেবশ্রী। এর পরেও অবশ্য সল্টলেকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে দেখা করতে যান দেবশ্রী রায়। যদিও, দিলীপবাবুর সঙ্গে সেদিন দেখা হয়নি বিজেপি রাজ্য সভাপতির।