আজ থেকে কলকাতায় শুরু র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট৷ মাত্র ৪০ মিনিটেই মিলবে এই পরীক্ষার মাধ্য়মে পাওয়া যাবে করোনার রিপোর্ট৷ সম্প্রতি এই ঘোষণা করেচিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। এবার তার বাস্তবায়ন হতে চলেছে। 

জানা গিয়েছে, দিল্লি সহ একাধিক রাজ্যে ইতিমধ্য়েই  শুরু হয়েছে এই টেস্ট। রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এবার সেই পথেই হাঁটতে চলেছে কলকাতা৷ মঙ্গলবার নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, বাংলায় অ্যান্টিজেন টেস্ট করা হবে৷ যার ফলে দ্রুত পরীক্ষার ফল দেখতে পাবে মানুষ। ইতিমধ্য়েই নতুন পরীক্ষার কিট রাজ্য়ে পাঠিয়েছে আইসিএমআর। দাবি অনুযায়ী মাত্র ৪০ মিনিটেই এর মাধ্য় করোনা পরীক্ষার ফল পাওয়া যাবে। 

সূ্ত্রের খবর, কলকাতা পুরসভার বরোগুলিতে প্রতিদিন ৫০টা করে র‌্যাপিড টেস্ট হওয়ার কথা। নিয়ম অনুসারে এই পরীক্ষার মাধ্য়মে একসঙ্গে ৮ জনের পরীক্ষা করা যাবে। সম্ভব৷ সব মিলিয়ে ১৬টি বরোতে একদিনে ৬৪০০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। অতীতে বেলগাছিয়াতে র‌্যাপিড টেস্ট শুরু হয়েছিল৷ কিটে কিছু সমস্য়া তৈরি হওয়ায় সেবার বন্ধ করা হয়েছিল এই টেস্ট।

রাজ্য়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্য়া কমছে না।  রাজ্য়ের স্বাস্থ্য় দফতরের বুলেটিন বলছে, একদিনে পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ২২৯৪। বেড়েছে মৃতের সংখ্যা৷ গত ২৪ ঘণ্টায় ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্য়ে। তবে আশা জাগাচ্ছে সুস্থতার হার। পরিসংখ্য়ান বলছে, রাজ্যে সুস্থ হয়ে ওঠার হার একদিনে অনেকটাই বেড়েছে। আগে যেটা ৬৩ শতাংশে গিয়ে ফের নীচের দিকে যাচ্ছিল, এখন তা ফের ৬৭ শতাংশে পৌঁছেছে। 

এদিন রাজ্যে স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনের তথ্য জানাচ্ছে, একদিনে ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্য়ে। যার মধ্যে কেবল কলকাতারই ১৭ জন৷ যা ফলে পশ্চিমবঙ্গে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৪৯০ জন৷ এদের মধ্য়ে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৯৬৫২ জন৷

যদিও স্বস্তির খবর,গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্য়ের হাসপাতালগুলি থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০ ৯৪ জন৷ ফলে এই পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৪১১৬ জন৷ পশ্চিমবঙ্গে সুস্থ হয়ে ওঠার হার বেড়ে হয়েছে ৬৭.৬০ শতাংশ৷ এতদিনের মধ্য়ে যা একদিনে সর্বোচ্চ হার৷ গতকাল ছিল ৬৬.৭৪ শতাংশ৷