হাতে সময় মাত্র কয়েকদিন, এর পরেই বাঙালীর সর্ববৃহৎ উৎসব দুর্গা পূজার প্রারম্ভ। কৈলাস থেকে বাপের বাড়িতে মেয়ের আগমন ঘিরে বহু আগে থেকেই বিভিন্ন বারোয়ারী থেকে সার্বজনীন ক্লাব গুলোতে ব্যস্ততা শুরু হয়ে গেছে। মেয়েকে বাড়িতে বরণ করার মধ্যেও প্রত্যেকবার নতুনত্বের ছোঁয়া নিয়ে আসে ক্লাবের পুজোগুলি।  

আরও পড়ুন- নাম লেখাননি এখনও, দেরি না করে অংশ নিন এশিয়ানেট নিউজ শারদ সম্মান ২০১৯-এ

আরও পড়ুন- বিন্দুতে শুরু বিন্দুতে শেষ, এই থিমেই আসতে চলেছে বাদামতলা আষাঢ় সংঘের পুজো

প্রতিযোগিতায় নামতে নারাজ সল্টলেক সেক্টর ওয়ানের এএ ব্লকের পূজো উদ্যোক্তারা। সাধারণত শহর থেকে শুরু করে মফঃস্বল বা গ্রামের পূজোগুলির মধ্যেও প্রতিযোগীতাপূর্ন মনোভাবের অভাব দেখা যায় না, সেই পরিপ্রেক্ষিতে এক আশ্চর্য ব্যতিক্রম এই পূজো।  

আরও পড়ুন- ইচ্ছেপূরণ করতে এই বছর চলে আসুন কুমোরটুলি সর্বজনীনে

 এই ব্লকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অশোক চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এই বছর অনেক ছোট করে তারা পূজোটি সারতে চাইছেন। এ বছর কোনও স্পনসার নয়, ব্লকের লোকেদের থেকে চাঁদা তুলে এবং কিছু বিজ্ঞাপনের সাহায্যেই এবার তারা মাতৃ আরাধনা করবেন। যদিও পুজোর এই পরিস্থিতি সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেননি তিনি। তবে জানিয়েছেন থিমের বদলে সাবেকিয়ানাতেই ভরসা রাখছেন তারা। চারিদিকে থিম পুজোর রমরমার মধ্যে তাই সল্টলেক সেক্টর ওয়ানের এএ ব্লক  ব্যতিক্রম।