সল্টলেকের এ-বি ব্লক আবাসিক সংঘের পূজো ৪১ তম বর্ষে পদার্পণ করলো। এই সংঘের এবারের ভরসা  'রাবণ'। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। সল্টলেক সেক্টর ওয়ানের সবচেয়ে বড় পূজোগুলির মধ্যে অন্যতম এই এ-বি ব্লক আবাসিক সংঘের পূজো। সেই জায়গা থেকে দাড়িয়ে নিজেদের সুনাম বজায় রাখতেই এই অভিনব ভাবনার থিম বেছেছেন উদ্যোক্তারা। তাদের থিমের মূল বক্তব্য "আজও রাবন বেঁচে আছে"।

দেখে নিন- নাম লেখাননি এখনও, দেরি না করে অংশ নিন এশিয়ানেট নিউজ শারদ সম্মান ২০১৯-এ

পুজোর যুগ্ম সম্পাদক মৃন্ময় গুপ্ত জানান, সাধারণ মানুষের মনের মধ্যেও রাবণের মতো ভালো এবং খারাপ দুটি সত্ত্বা আছে। রাবণের চরিত্রটি নিয়ে রিসার্চ করলে তার অত্যাচার এবং নৃশংসতার সঙ্গে তার ধার্মিক সত্ত্বাটিও উঠে আসে। তেমনই প্রতিটি মানুষের মধ্যের ভালো খারাপ দুটি সত্ত্বা সম্পর্কে মানুষকে ওয়াকিবহাল করাই তাদের পুজোর লক্ষ। 

আরও পড়ুন- শান্তির বাণী-ই এবার মূলমন্ত্র নেতাজি কলোনির লো ল্যান্ড এর

 ৪১ বছর ধরে তাদের পূজো সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে চলেছে। এ নিয়ে প্রশ্ন করলে মৃন্ময় বাবু জানান ব্লকের মানুষের সৌভাতৃত্ববোধই এর মূল কারণ। পূজোর সপ্তমী, অষ্টমী, নবমীতে ব্লকের কোনও বাড়িতে রান্না হয় না, সবাই একসঙ্গে বসে মিলেমিশে খাওয়া দাওয়া করেন। এছাড়া দশমীর পরের দিন রাতে একটি গেট-টুগেদার ও আয়োজিত হয় বিজয়া সম্মেলনী উপলক্ষে আশেপাশের অনেক ব্লকের পূজোর বাজেট যেখানে ক্রমশ কমে যাচ্ছে, অন্তরকলহ বেড়ে চলেছে, সেখানে ১৪ লাখ বাজেট সম্বল করে শিল্পী গৌতম দাসের তত্ত্বাবধানে যথাসম্ভব নিখুঁত ভাবে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সম্পন্ন করছে এ-বি ব্লক আবাসিক সংঘ।