শেষ তিন দিনে অনেকটাই শান্ত হয়ে গিয়েছে রাজ্য। বরং দিল্লি জ্বলছে। কলকাতা হাইকোর্টে এমনই দাবি করল রাজ্য সরকার। যদিও, এ দিন ফের রাজ্যের থেকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রিপোর্ট তলব করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। 

এ দিন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ভাস্করণ নায়ার রাধাকৃষ্ণণ ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে মামলাটি ওঠে। আগামী সোমবার আদালতে রিপোর্ট জমা দিতে হবে রাজ্যকে। সেদিনই বেলা সাড়ে বারোটায় ফের মামলার শুনানি হবে। 

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসি নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতা এবং রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভকারীদের তাণ্ডব নিয়ে একাধিক জনস্বার্থ মামলা হয়েছে হাইকোর্টে। এ দিন তারই মধ্যে এক মামলাকারী সুরজিৎ সাহার আইনজীবী স্মরজিৎ রায়চৌধুরী অভিযোগ করেন, গোটা রাজ্যে এখনও গোলমাল চলছে। ইন্টারনেট পরিষেবাও বন্ধ রয়েছে৷ এ ছাড়া রাজ্য সরকার কোর্টে যে রিপোর্ট পেশ করেছে তা সাধারণ রিপোর্ট।  রিপোর্টে বিশদ কোনও তথ্য নেই। 

রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত পাল্টা দাবি করেন, মামলাকারীদের কোনও ধারণাই নেই সারা দেশে কী চলছে। আসলে মামলাকারীরা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়েই একাধিক মামলা করেছেন বলে অভিযোগ করেন কিশোরবাবু। মামলাগুলির কোনও প্রাসঙ্গিকতাও নেই বলে তাঁর অভিযোগ। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রয়েছে বলে আদালতকে জানান অ্যাডভোকেট জেনারেল। তিনি বরং দাবি করেন, শেষ তিন দিনে রাজ্য অনেক বেশি শান্ত রয়েছে। রাজ্যে বড় বড় মিছিল হলেও সবই শান্ত ছিল। কোথাও কোনও সংঘর্ষ হয়নি৷  বরং এই মুহূর্তে দিল্লি জ্বলছে বলে আদালতে দাবি করেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল।