একজন ভিনরাজ্য়ের, আর বাকি দু'জনের এ রাজ্যের বাসিন্দা। রাতের শহরে ফের নিষিদ্ধ মাদক-সহ তিনজন পাচারকারীকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের এসটিএফ।  ধৃতদের কাছে মিলেছে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা ইয়াবা ট্যাবলেট।  তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে চক্রের বাকি সন্ধান পাওয়ার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা।

গোপন সূত্রে খবর মিলেছিল। রবিবার রাতে চিংড়িঘাটার কাছে ক্যানাল সাউথ রোডে অভিযান চালান কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স বা এসটিএফের আধিকারিকরা। ঘড়িতে তখন রাত প্রায় সাড়ে বারোটা। তদন্তকারী নজরে পড়ে, সাউথ ক্যানাল রোডে তিনজন ব্যক্তি সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করছে।  তিনজনকেই আটক করে শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ। তাদের কথাবার্তায় সন্দেহ আরও বাড়ে এসটিএফ আধিকারিকদের।  তল্লাশি শুরু করতেই ফাঁস হয়ে যায় মাদক পাচারের ছক।  বাকিবিল্লা গাজি, আখতারুল গাজি ও মহম্মদ আলি আহমেদ নামে ওই তিনজনের কাছ থেকে উদ্ধার ৬ কেজি ইয়াবা ট্যাবলেট। তদন্তকারীদের দাবি, উদ্ধার হওয়া নিষিদ্ধ মাদকের বাজারমূল্য প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা।  বাকিকুল্লা, আখতারুল ও আহমেদকে গ্রেফতার করেছেন এসটিএফ আধিকারিকরা। 

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ধৃতদের মধ্যে মহম্মদ আলি আহমেদের বাড়ি মণিপুরে। আখতারুল গাজি উত্তর ২৪ পরগনার স্বরূপনগরের বাসিন্দা।  আর বাকিবিল্লা গাজির বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনারই বসিরহাটে। কিন্তু  ইয়াবা ট্যাবলেটগুলি কোথা থেকে আনা হচ্ছিল? এই চক্রের সঙ্গে কারাই বা জড়িত?  প্রাথমিক তদন্তে গোয়েন্দাদের অনুমান, মায়ানমার থেকে ইয়াবা ট্যাবলেট আনা হচ্ছিল কলকাতায়। উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশে পাচার। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকি খোঁজ পাওয়ার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা।  প্রসঙ্গত, কলকাতায় এর আগে নিষিদ্ধ মাদক উদ্ধার হয়েছে। ধরা পড়েছে পাচারকারীরাও।