নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে পথে নামল পড়ুয়ারা। আলিয়া বিশ্ববিদ্য়ালয়,  এসআরএফটিআই, যাদবপুর বিশ্ববিদ্য়ালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ইতিমধ্য়েই  শহিদ মিনার, মহাজাতি সদন জুড়ে শুরু করেছে মিছিল। নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ইতিমধ্য়েই রাজ্য়ের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয়েছে। নরেন্দ্র মোদীকে এই আইন লাগু করার জন্য় ধন্য়বাদ জানিয়ে মিছিল করেছে বিজেপি ও গেরুয়াপন্থী সংগঠনগুলি। যদিও তাদের অভিযোগ, বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির পার্টি অফিস ভাঙচুর করেছে তৃণমূলের লোকজন।

আরও পড়ুন, অশান্তি রোধে কি পদক্ষেপ, রাজ্যের কাছে রিপোর্ট তলব হাইকোর্টের

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাশ হওয়ার পরই উত্তাল গোটা দেশ। সেই প্রতিবাদে সরব হয়ে রাস্তা নেমেছিল দিল্লির জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরও। বিপরীতে যা মিলেছিল তা আরও একবার শিক্ষাজগতের 'কালো অধ্যায়' হয়েই থেকে গেল। রাস্তায় বিক্ষোভ ঠেকাতে টিয়ার গ্যাস থেকে শুরু করে বিপুল পরিমাণে পুলিশ বাহিনী হাজির ছিল সেদিন।

আরও পড়ুন, রোজ ভ্যালি কাণ্ডের অন্যতম সাক্ষীর অস্বাভাবিক মৃত্যু, ছিলেন গৌতম কুণ্ডুর ঘনিষ্ঠ

ছাত্রদের পক্ষ থেকে অভিযোগ ওঠে পুলিশি নৃসংশতার। দিল্লির এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পরই রাতারাতি প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছিল হাজার হাজার পড়ুয়া। বাদ পড়েনি যাদবপুরও। এরপরি ক্রমেই অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে দিল্লি। ছাত্রদের প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে দেশ জুড়ে। বাংলা সহ গোটা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদের আগুন জ্বলছে। এতদিন প্রতিবাদ ছিল 'বৈষম্যমূলক' নাগগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে। রবিবার রাতের 'ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা'র পর জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনের মুখ ঘুরল দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধেও।