ভয়াবহ বৃষ্টি হচ্ছে মুম্বইয়ে। ভারী বৃষ্টিতে পাঁচিল ও ছাদে ধ্বস নেমে ২৬জনের মৃত্যু হয়েছে ইতিমধ্যেই। মুম্বাই সংলগ্ন অঞ্চলগুলির মধ্যে ১৩ জন মারা গিয়েছেন মালাদে, ৩ জন মারা গিয়েছেন থানেতে। নিহতদের মধ্যে রয়েছে তিন বছরের শিশুও। সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত মুম্বাইয়ের রেল পরিষেবা।  এবার কলকাতা থেকে মুম্বাইগামী তিনটি ট্রেন বাতিল করা হল।

এদিন দক্ষিণ পূর্ব রেলওয়ে তরফ থেকে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে মুম্বাই শাখার ৩ টি ট্রেন আগামী দুই দিনের জন্য বাতিল করা হয়েছে। আগামী বুধবার হাওড়া মুম্বাই মেল বাতিল হয়েছে, বাতিল হয়েছে দুরন্ত এক্সপ্রেও। হাওড়া পুনে দুরন্ত এক্সপ্রেস বাতিল হয়েছে আগামী বৃহস্পতিবারের জন্যে। ভারী বৃষ্টিকেই যাত্রাভঙ্গের কারণ হিসেবে দায়ী করা হয়েছে এই বিবৃতিতে।
 

আরও পড়ুনঃ মুম্বইতে প্রবল বর্ষণের জের, বাতিল হাওড়া-শালিমার-সহ একগুচ্ছ ট্রেন

প্রসঙ্গত প্রতিব ছরের মতো এই বছরও ভাসছে বাণিজ্য নগরী। শহর জুড়েই যান চলাচল ব্যাহত। এমনকী সরকারি ছুটি ঘোষণা করতে বাধ্য হয়েছে সরকার। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তার কথা ঘোষণা করেছেন। বাড়িতে থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে মুম্বইবাসীদের। ইতিমধ্যে ৫২ টি বিমান বাতিল হয়েছে। ৫৪ টি বিমানের গতিপথ বদল করা হয়েছে। কুরলা রেল জংশন, তিলকনগরের মতো স্টেশনগুলি পুরোটাই জলের তলায়। আবহাওয়াবিদরা বলছেন গত এক দশকে একদিনে সর্বাধিক বৃষ্টির রেকর্ড মুম্বইয়ে এটাই। প্রসঙ্গত

আগেই শালিমার এলটিটি এক্সপ্রেস-এর যাত্রাপথ খান্ডোয়ার কাছে যাত্রা সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে করা হয়েছে। হাওড়া জ্ঞানেশ্বরী এক্সপ্রেস লাগাতপুরির কাছে যাত্রাপথে সংক্ষিপ্ত করে দেওয়া হয়েছিল, এবার বাতিল হল আরও তিনটি ট্রেন।প্রসঙ্গত মুম্বইয়ের অবস্থা আগামী ৪৮ ঘণ্টায় আরও খারাপ হতে চলেছে। অতি ভারী বর্ষণের সম্ভাবনার কথা জানাচ্ছেন আবহবিদরা।