বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া- রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বারবার সরব হয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বারাকপুরে মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনা থেকে শুরু করে ডায়মন্ড হারবারে জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা। প্রত্যেকটি অহিংসার ঘটনায় সরব হয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যের মুখ্যসচিব ও ডিজিকেও তলব করেছেন তিনি। রাজ্য সরকার তাঁর কথা না শোনায় বারবার ট্যুইট করে বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। এর তীব্র সমালোচনা করলেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। 

আরও পড়ুন-'দূরত্ব নেই, সবই ঠিক আছে', সাংসদ শান্তনুর সঙ্গে সাক্ষাতের পর জানালেন কৈলাস

হাওড়ার দাস নগরে একটি দলীয় অনুষ্ঠানে এসেছিলেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। সেখানে তিনি বলেন, ''রাজ্যপাল সম্পূর্ণ সংবিধান বহির্ভূত ও রাজনৈতিক উদেশ্য প্রণোদিত হয়ে কাজ করছেন। রাজ্যপালের দায়িত্ব নিরপেক্ষতা বজায় রাখা। কিন্তু রাজ্যপাল যেভাবে জনসমক্ষে তার মতামত ব্যক্ত করেছেন। তাতে তাঁর নিরপেক্ষতা বজায় থাকছে না। টুইট করে সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনা করা উচিত নয়। তিনি সংবিধান বহির্ভূত কাজ করছেন''।

আরও পড়ুন-'এবছর পৌষ মেলা নয়, হবে পৌষ উৎসব', আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীকে

নাড্ডার কনভয়ে হামলা সংক্রান্ত বিষয়ে প্রকাশ্য জনসভায় তীব্র কটাক্ষ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। একটা নেতার পিছনে পঞ্চাশটি গাড়ি বলে মন্তব্য করেন। মমতার মন্তব্যের সেই ভিডিও ট্যুইটে পোস্ট করে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করতে বলেছিলেন। এছাড়াও, রাজ্যের বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন রাজ্যপাল। তাঁর এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করলেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার।