রাজ্য়ে নিজামুদ্দিন যোগ নিয়ে চিন্তায় সরকার। এবার দিল্লির নিজামুদ্দিন তবলিগি জমায়েতের আতঙ্ক দেখা দিল টলিউডের অভিনেত্রী সাংসদের পরিবারে। সূত্রের খবর, রবিবার জ্বর নিয়ে বাইপাসের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অভিনেত্র্রীর বাবা। সম্প্রতি রাজ্য়ের নিজামুদ্দিন ফেরতদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তিনি। 

করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে টলিউডের অভিনেত্রী সাংসদের বাবা

গত সপ্তাহেই দিল্লির নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় সমাবেশ ফেরতদের নিয়ে তথ্য় দিয়েছিলেন মুখ্য়মন্ত্রী। নবান্নে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় বলেন, রাজ্য়ে নিজামুদ্দিন ফেরত ১০৮ জন বিদেশিকে আমাদের এখানের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্য়ে কেউ মায়ানমার, কেউ ইন্দোনেশিয়া, কেউ বাংলাদেশের নাগরিক। এদের সঙ্গে রয়েছেন বাংলা থেকে নিজামুদ্দিনে যাওয়া ৬৯ জন। সব মিলিয়ে  নিউ টাউনের হজ হাউসে কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে ১৭৭ জনকে।
 

এই মুহূর্তে কলকাতার সেরা ১০ খবর,যা আপনাকে ভাবাবেই..

পরিসংখ্য়ান বলছে, দিল্লির নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় সমাবেশ থেকে ফেরার পরই দেশের বিভিন্ন রাজ্য়ে করোনায় মারা গিয়েছেন ১৩-র বেশি। সেকারণে রাজ্য়ে নিজামুদ্দিন ফেরতদের  নিয়ে চিন্তায় সরকার। তাই টলিউড অভিনেত্র্রীর বাবা এদের সংস্পর্শে আসতেই আর ঝুঁকি নেয়নি  কেউ। তড়িঘড়ি অভিনেত্রীর বাবার সোয়াব টেস্ট বা লালারস কোভিড১৯ পরীক্ষার জন্য় পাঠানো হয়েছে। তবে এখনও বিষয়টি নিয়ে কোনও কিছু প্রকাশ্য়ে আনতে রাজি নয় হাসপাতাল। রিপোর্ট আসার  পরই এ বিষয়ে পরিষ্কার কিছু জানা যাবে।

পরিবার সূত্রে খবর, সম্প্রতি বিদেশে যাওয়ার বা ভিন রাজ্য়ে যাওয়ার কোনও ইতিহাস নেই অভিনেত্রীর বাবার।  সম্প্রতি মুখ্য়মন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আর্থিক অনুদান দিয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। এমনকী নিজে রাস্তায় নেমে করোনা মোকাবিলায় মাস্ক বিলি করেছেন। একাধিকবার সোশ্য়াল মিডিয়ায় করোনার বিরুদ্ধে প্রচারে দেখা গিয়েছে তাঁকে। জানা গিয়েছে, কদিন থেকেই জ্বর ও শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল  তাঁর বাবার। রবিবার সেকারণে ঝুঁকি না নিয়ে বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয় সাংসদের বাবাকে। 

মাস্ক নেই, রাস্তায় কী পরলে ধরবে না পুলিশ.

রাজ্য়ের বর্তমান করোনার পরিসংখ্য়ান বলছে,রবিবার পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে মারণ কোভিড১৯-এ ৯৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই রোগে মারা গিয়েছেন ৭ জন। খোদ স্বাস্থ্য় ভবনের বুলেটিনে ঘোষণা করা হয়েছে এই কথা। বুলেটিনে বলা হয়েছে, রাজ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্য়া ৪০,৫৭৬ জন৷ এছড়াও আইসোলেশনে রয়েছেন ২০৮৫ জন৷ হাসপাতালের আইসোলেশন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ১৭৫৬ জন৷ রাজ্য়ে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ২,৫২৩ জনের৷