বিধানসভা ভোট যতই এগিয়ে আসছে ততই তীব্র হচ্ছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দল। শুভেন্দু অধিকারীর পর এবার দলের বিরুদ্ধে সরাসরি অসন্তোষ প্রকাশ করলেন তৃণমূল বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দিলের প্রতি যাঁরা নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করেছেন তাঁরাই আজ দল থেকে দূরে সরে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করলেন তিনি। অন্যদিকে, মোর্চা নেতা বিমল গুরুং স্পষ্ট জানালেন আগামী বিধানসভা ভোটে তৃণমূলের সঙ্গে জোট করে লড়াই করবে তাঁর অনুগামীরা।

আরও পড়ুন-'পুরোটাই সাজানো'-'মামলা করব', সুদীপ্ত সেনের পত্র-বোমায় ক্ষেপল বাম-বিজেপি-কংগ্রেস

শনিবার টালিগঞ্জে এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়। সেখানে তিনি বলেন, ''যাদের মানুষ পছন্দ করে না তাঁরা যেনো সামনের শারিতে না থাকে। আমি আমার মনের কথা বললাম। কোনো কর্মী বা নেতা দল ছেড়ে চলে গেলে সেটা দলের ক্ষতি। অতীন দা নিজের যন্ত্রনার কথা বলেছেন। এরকম অনেকের অনেক যন্ত্রনা আছে। আমি মানুষের জন্য কাজ করছি, করব। আর কাজ করতে গেলে রাজনৈতিক প্লাটফর্ম লাগবে। আমি কাজ রাজনৈতিক প্লাটফর্মে থেকে আমি মানুষের জন্য কাজ করব। আগামী দিনে যুবরা হতাশ হয়ে পড়ছেন,কিছু রাজনৈতিক ব্যক্তিদের কাজ কর্মের জন্য। রাজনীতি থেকে যুব সমাজ দূরে থাকছে''।

আরও পড়ুন-ফের বিপাকে মুকুল রায়, বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনে চার্জশিট সিআইডির

অন্যদিকে, ২০১৭ সালের পর কয়েকমাস আগে প্রকাশ্যে এসেছেন বিমল গুরুং। ওই বছর পুলিশ অফিসার অমিতাভ মালিক খুনে অভিযুক্ত সে। রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা ঝুলছথে বিমল গুরংয়ের কাঁধে। এই অবস্থায় পুজোর সময় আচমকা প্রকাশ্য়ে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে একসঙ্গে লড়াই করার প্রস্তাব দেন। শুধু তাই নয়, তারপর থেকেই দক্ষিণ ২৪ পরগনার একটি হোটেলে ঠাঁই নিয়েছিলেন তিনি। শনিবার সন্ধ্যায় শিয়ালদহ থেকে শিলিগুড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। সেখানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে জোটে কাজ করবেন। সেকারণেই কী দল থেকে নিজেকে দূরে রাখছেন তৃণমূল বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।