এবছর দক্ষিণবঙ্গের মানুষ আর বর্ষা দেখতে পেল না। উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির ফলে বানভাসি অবস্থা তৈরি হলেও কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের মানুষ বৃষ্টিহীন অবস্থাতেই কাটিয়ে ফেললেন জুলাই মাসের অর্ধেক। কিন্তু তাও এখনই আশা ছাড়ছে না বাঙালি। হা পিত্যেশ করে বৃষ্টির অপেক্ষার দিন গুনছেন তাঁরা। 

আলিপুর হাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী ১ থেকে ২ ঘণ্টার মধ্য়ে হুগলি, উত্তর ২৪ পরগণায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। তবে উত্তরবঙ্গে এখনই বৃষ্টি থামছে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। পরিমাণে কমলেও বৃষ্টি জারি থাকবে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, কালিংপং সহ  উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে। কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে তুলনামূলক বেশি বৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। এর জন্য সতর্কতা জারি হয়েছে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে। কালকেও একই রকম বৃষ্টি হবে বলে জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুনঃ কোথাও বন্যা, কোথাও খরা- প্রকৃতির খামখেয়ালিপনায় একই সময়ে ভিন্ন পরিস্থিতির সাক্ষী দেশের এই ৬ জায়গা

মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিলেও দক্ষিণবঙ্গে তাপমাত্রা জনিত ও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি একই রকম থাকবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। তাই কপালে ভাঁজ পড়েছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষের। 

দুদিন আগে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল, বিহার থেকে উত্তর পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত একটি নিম্নচাপ রয়েছে। এই নিম্নচাপের জেরে কলকাতা, দক্ষিণবঙ্গ, হাওড়া, হুগলি, মুর্শিদাবাদ, দুই ২৪ পরগণায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল। কিন্তু আকাশ মেঘলা থাকলেও তেমন বৃ্ষ্টি হবে না বলেই জানিয়েছিল হাওয়া অফিস। আর তাই স্বস্তিও মেলেনি। তাই এবারের বর্ষা বৃষ্টির অপেক্ষাতেই কেটে গেল দক্ষিণবঙ্গের মানুষের।