দু্র্ভোগ এখনই শেষ হচ্ছে না কলকাতার। এমনটাই জানিয়ে দিচ্ছে আবহাওয়া দফতর। হাওয়া অফিসের মতে, এক্ষুনি বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই কলকাতায়।

বুধবার শহরের সবচেয়ে বেশি সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৬.৬  ডিগ্রি সেলসিয়াস স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতা থাকবে সর্বোচ্চ ৯৩ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৫৭ শতাংশ। 

হাওযা অফিসের মতে, দক্ষিণের কপাল ফেরার এক্ষুনি কোনও সম্ভাবনা নেই।  যদিও গত শনিবার ৭৮ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়ে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে।  কিন্তু যে পরিমাণ মেঘ শহবরের আকাশে জমেছিল সেই পরিমাণ বৃষ্টি হয়নি। কমেনি আর্দ্রতাও। আবহবিদদের মতে, বর্ষা যত এগোবে তত বাড়বে এই জলীয় বাষ্পের পরিমাণ । কাজেই তাপপ্রবাহ না থাকলেও, অস্বস্তি থাকবে। 

প্রসঙ্গত গত চাপ দিন ধরে টানা হালকা ও মাঝারি  বৃষ্টি হচ্ছে উত্তরের পাঁচ জেলায়। আগামী  দিন দুয়েক এই বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে । দার্জিলিং, কালিম্পং , জলপাইগুড়ি জেলায়  সম্ভাবনা রয়েছে ভারী বৃষ্টির।  এই বৃষ্টি হচ্ছে অসমের ওপর ঘণীভূত হওয়ার কারণে। 

প্রসঙ্গত বর্ষা নিয়েও দুঃসংবাদ রয়েছে। সূত্রের খবর, বর্ষা আসতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে। কেরালাতে ১ জুনের বদলে ৬ তারিখ বর্ষা ঢুকবে জানিয়েছে মৌসম ভবন। 

এই ভ্যাপসা গরমে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়বেন সাধারণ মানুষ. যারা কাজের জন্যে  রাস্তায় বের হন। চিকিৎসকরা পরামর্শ দিচ্ছেন এই আবহাওয়ায় শরীরের নুন বেরিয়ে যায় ঘামের মধ্যে দিয়ে। সেই কারণে সঙ্গে নুনজল রাখতে বলেছেন, চিকিৎসক। এতে শরীরে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের পরিমাণ ঠিক থাকবে।