রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে। বাংলায় করোনা আক্রান্ত লাফিয়ে বাড়ায় মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করেছেন বিরোধীরা। যদিও এদিন নবান্নে মুখ্য়মন্ত্রী বলেন,
করোনা মোকাবিলায় সাধ্য মতো চেষ্টা করছে রাজ্য সরকার। তবে মনে রাখা  উচিত, সরকার ভগবান নয়, ম্যাজিশিয়ানও নয়। প্রতিনিয়ত রাজ্যকে গালাগাল করা হচ্ছে। কোনও সাহায্য ছাড়াই কাজ করতে হচ্ছে সরকারকে।

মমতা বলেন, রাজ্য়ে বিভিন্ন পরিস্থিতি মানিয়ে নিয়ে সরকারকে চলতে হচ্ছে। দেশের অন্য কোথাও এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি, মৃতদেহ দাহ করতে গিয়ে জনতার ক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে রাজ্য়কে। পাড়ায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। শ্মশানে মৃতদেহ পোড়াতেও বাধা দিচ্ছে।

এই বলেই থেমে থাকেননি মুখ্যমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রের দিকে সাহায্য় না করার অভিযোগ তুলেছেন তিনি।  মমতা বলেন,কোনওরকম সহযোগিতা ছাড়া বাংলা যেভাবে কাজ করছে সেভাবে আর কেউ করছে না। একমাত্র এই রাজ্যেই কেন্দ্রের তরফে সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না। তবুও চিকিৎসকরা সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছেন। যতটা পারবেন সম্ভব সকলে ঘরে থাকুন।

কদিন আগেই তিন হাসপাতাল ঘুরে মারা গিয়েছেন ইছাপুরের এক তরুণ । বেড না পাওয়ার এই সমস্যা নিয়ে এদিন মুখ খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, একজন করোনা রোগী ১৫ দিনের জন্য ভর্তি হচ্ছেন। সুস্থ হলে ১৪ দিনের আগেই তাঁকে ছাড়া হোক। এ বিষয়ে দেখে নিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।