ফের রেকর্ড সংখ্য়ায় করোনা সংক্রমণ রাজ্য়ে।  সব ছাপিয়ে এবার প্রায়  ২৫০০-এর ঘরে পৌঁছে গেল ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। তবে খুশির খবর, আক্রান্তের সঙ্গে সঙ্গে এদিন হাসপাতাল থেকে ছাড়ার সংখ্যাও রেকর্ড গড়েছে। একদিনে ছুটি পেয়েছেন ২০০৬ জন। যা ভরসা জোগাচ্ছে স্বাস্থ্য় ভবনকে।   

রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায়, সংক্রামিত হয়েছেন ২৪৩৬ জন। রাজ্যে এই মুহূর্তে মোট সংক্রমণ ছাড়াল ৫০ হাজার। সব মিলিয়ে সংক্রামিতের সংখ্যা ৫১ হাজার ৭৫৭। পাশাপাশি করোনা সংক্রমণ নিয়ে মারা গেছেন ৩৪ জন। রাজ্য় স্বাস্থ্য় দফতরের বুলেটিন  বলছে, মোট মৃতের সংখ্যা ১২৫৫। মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৩১ হাজার ৬৫৬। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা অ্যাকটিভ রয়েছে ১৮ হাজার ৮৪৬ জনের দেহে। আগের মতো ৬১.১৬ শতাংশ ডিসচার্জ রেটের দিকে এগোচ্ছে বাংলা। 

করোনা বুলেটিন বলছে,  আক্রান্তের হিসেবে শীর্ষে রয়েছে কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনা।  দুই জেলায় করোনা সংক্রমণের সংখ্যা যথাক্রমে ৭৯৫ এবং ৫৪৫। এর পরেই আছে হাওড়া ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা। ওই দুই জেলা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০৩ এবং ১৭৩ জন। 

পরিসংখ্য়ান বলছে ,যারা সংক্রমণ নিয়ে মারা গেছেন, তার অর্ধেকেরও বেশি কলকাতার বাসিন্দা। সেই সংখ্য়া একদিনে ১৯ জন। যার ফলে শহরে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬৪২। উত্তর ২৪ পরগনায় মারা গেছেন ৬ জন। ৩ জন মারা গেছেন হাওড়া থেকে, ২ জন দক্ষিণ ২৪ পরগনা থেকে। ১ জন করে রোগীর মৃত্যু হয়েছে বীরভূম, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমান ও হুগলি থেকে।

জানা  গিয়েছে, রাজ্য়ে ক্রমবর্ধমান করোনা বৃদ্ধি দেখে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে  সেফ শেল্টার খোলার চিন্তাভাবনা করছে রাজ্য় সরকার। ইতিমধ্য়েই সেই দিকেই ইঙ্গিত দিয়েছেন স্বাস্থ্য় ভবন।