নিজেকে সুন্দর করে তুলে ধরতে কে না চান। সৌন্দর্যের জন্য নিয়ম করে ক্লিনজিং, টোনিং, ফেশিয়াল কত কিছুই না করতে হয়। সৌন্দর্যকে আরও কয়েক গুণ  বাড়িয়ে তুলতে আবার মেক আপও ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু শুধু এভাবে রূপচর্চা করলেই হয় না। মেক আপ কিটকেও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়। 

সৌন্দর্যের জন্য যা ব্যবহার করছেন, তা পরিষ্কার না হলে হীতে বিপরীত হতে পারে। এছাড়া যে ক্রিম ব্যবহার করেন সেগুলি যদি ভালো না হয় তাহলেও ত্বকে সমস্যা হতে পারে। এগুলি কতদিন ব্যবহার করবেন, কীভাবে পরিষ্কার রাখবেন সেদিকেও নজর দিন। কোন কোন বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন দেখে নিন- 

১) মেক আপ তো করেন। কিন্তু মেক আপ করার ব্রাশ কতটা পরিষ্কার দেখুন। তাই পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে নিয়মিত মেক আপ ব্রাশগুলি পরিষ্কার করুন। ইষদুষ্ণ জলে মাইল্ড কোনও  লিকুইড সোপ দিয়ে এই ব্রাশগুলি ধুয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে তবেই মেক আপ কিটে রাখবেন। যে ব্রাশ নষ্ট হয়ে গিয়েছে সেগুলি জমিয়ে রাখবেন না। 

আরও পড়ুনঃ সুন্দর গোলাপী ঠোঁটের রহস্য কী জানুন, ৬টি টিপস-এ আপনিও পান সুন্দর ঠোঁট

২) বাজারে বিভিন্ন ধরনের প্রডাক্ট কিনতে পাওয়া যায়। এর মধ্য়ে বেশ কিছু ক্ষতিকারক কেমিক্যালও থাকে। তাই যাই কিনবেন ভাল করে লেবেল পড়ে নিন। দেখে নিন এখনও এক্সপায়ারি ডেটের মধ্যে এই প্রোডাক্ট রয়েছে কি না। নিজের ত্বকের সঙ্গে কোন উপাদান ভাল যাবে, তা দেখেই কিনুন। চেষ্টা করবেন অ্যালকোহল যুক্ত প্রডাক্ট না কেনার। না হলে পরে এই প্রডাক্টগুলি ব্যবহার করতে পারবেন না।

৩)মেক আপ রিমুভার হিসেবে অতিরিক্ত কেমিক্যাল যুক্ত প্রডাক্ট ব্যবহার করবেন না। বদলে অলিভ অয়েল বা বেবি অয়েল ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের কোনও রকম ক্ষতি হবে না। 

৪)  ঘরে তৈরি মাস্ক ত্বকের পক্ষে ভাল। কিন্তু অনেকে একটা ভুল করেন। ঘরে তৈরি মাস্ক বা ফেসপ্যাক বানিয়ে কিছুটা ব্যবহার করে রেখে দেন পরের দিন বাকিটা ব্যবহার করবেন বলে। কিন্তু এটি মোটেই ত্বকের জন্য উপকারী নয়। ‌

৫) মেক আপ বা রূপচর্চার যে কনও প্রডাক্ট সব সময়েই ঠান্ডা জায়গায় রাখুন। এতে ত্বক সুস্থ থাকবে। খুব গরমের মধ্য়ে রাখলে তা নষ্ট হয়ে যেতে পারে।