পুরাণে কথিত রয়েছে যে, ভগবান শিবের অশ্রুই হল রুদ্রাক্ষ। আর সেই কারণে রুদ্রাক্ষ একটি অত্যন্ত পবিত্র জিনিস বলে মনে করা হয়। জ্যোতিষশাস্ত্র  মতে, যে কেউ এই রুদ্রাক্ষ ধারণ করতে পারেন। এই রুদ্রাক্ষের মুখ অনুযায়ী একাধিক ভাগ হয়ে থাকে। জেনে নিন রাশি অনুযায়ী জাতক-জাতিকাদের কতমুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত।

১) মেষ- এদের গ্রহাধিপতি হল মঙ্গল। এই রাশির জাতকদের জন্য ৩ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 
২) বৃষ- এদের গ্রহাধিপতি হল শুক্র। এই রাশির জাতকদের ৬ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। 
৩) মিথুন-  এদের গ্রহাধিপতি হল বুধ।  এই রাশির জাতকদের জন্য ৪ মুখী ও ৮ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 
৪) কর্কট- এদের গ্রহাধিপতি হল চন্দ্র। এই রাশির জাতকদের  ২ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। 
৫) সিংহ- এদের গ্রহাধিপতি হল রবি। এই রাশির জাতকদের জন্য ১ মুখী, ১১ মুখ ও ১২ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 

৬) কন্যা- এদের গ্রহাধিপতি হল বুধ। এই রাশির জাতকদের ৪ মুখী ও ৮ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। 
৭) তুলা- এদের গ্রহাধিপতি হল তুলা। এই রাশির জাতকদের জন্য ৬ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 
৮) বৃশ্চিক- এদের গ্রহাধিপতি হল মঙ্গল। এই রাশির জাতকদের ৩ মুখ ও ৬ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। 
৯) ধনু- এদের গ্রহাধিপতি হল বৃহস্পতি। এই রাশির জাতকদের জন্য ৫ মুখী ও ১০ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 
১০) মকর- এদের গ্রহাধিপতি হল শনি। এই রাশির জাতকদের ৭ মুখী ও ১৪ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত। 
১১) কুম্ভ- এদের গ্রহাধিপতি হল শনি। এই রাশির জাতকদের জন্য ৭ মুখী ও ১৪ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা শুভ। 
১২) মীন- এদের গ্রহাধিপতি হল বৃহস্পতি। এই রাশির জাতকদের ৫ মুখী ও ১০ মুখী রুদ্রাক্ষ ধারণ করা উচিত।