গোটা বিশ্বের কাছে বর্তমানে আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে এই মারণ রোগ। ইতিমধ্যেই এই রোগকে মহামারি বলে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। চিনে এই রোগের উৎপত্তি হলেও ধীরে ধীরে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পরেছে এই মারণ রোগ। পরিসংখ্যান অনুযায়ী এই মুহূর্তে বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬৩৯২৮। সেই সঙ্গে ভারতে এই মুহূর্ত অবধি আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। এই মারণ রোগের হাত থেকে রক্ষার জন্য একাধিক সচেতনতা অবলম্বন করার নির্দেশ দিয়েছে 'হু'।

আরও পড়ুন- স্মার্টফোনের পর বাজারে আসছে উন্নতমানের ফিচার-সহ শাওমি ইলেক্ট্রিক স্কুটার

এই মারণ সংক্রমণ যাতে ছড়াতে না পারে তার জন্য দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। শুধু ভারতে নয় বিশ্বের প্রায় সমগ্র দেশেই এই মুহূর্তে চলছে লকডাউন। তাই এই সময়ে যে কোনও সমাবেশ বা বাড়ি থেকে বাইরে বেড়োতে নিষেধ করা হচ্ছে। বাড়িতে থেকেই এই মারণ রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করা সম্ভব। তবে জানলে অবাক হবেন এটিএম এমনকী স্মার্টফোন থেকেও ছড়াতে পারে এই মারণ ভাইরাস। তাই এই রোগের হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করতে নিয়মিত হাত পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি স্মার্টফোন পরিষ্কারও রাখা প্রয়োজন। কীভাবে সুরক্ষা বজায় রেখে পরিষ্কার রাখবেন স্মার্টফোন, জেনে নেওয়া যাক।

আরও পড়ুন- লকডাউনের জের, নির্জনতার সুযোগে সমুদ্র সৈকত দখল করল কয়েক লক্ষ কচ্ছপ

কী করবেন-

স্মার্টফোনকে জীবানুমুক্ত রাখতে তা বর্তমান সময়ে পরিষ্কার করা প্রয়োজন।
এর জন্য প্রথমেই স্মার্টফোনটি সুইচঅফ করে নিন। 
এরপর ফোনের খোলা মুখের থেকে যাতে ফোনের ভিতরে আদ্রতা প্রবেশ করতে না পারে তার জন্য তা সেলোটেপ দিয়ে বন্ধ করে নিন।
 এরপর নরম কাপড় সামান্য ভিজিয়ে তারপর তা মোছা শুরু করুন।
ক্লোরক্স ডিসইনফেক্টিং ওয়াইপস  বা আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল ওয়াইপস দিয়ে ফোনের বাইরের অংশগুলো পরিষ্কার করে নেওয়া যায়। 
ক্যামেরার লেন্সের উপর হালকা করে মুছুন বেশি চাপ দিয়ে মুছবেন না।
সেই সঙ্গে লক্ষ্য রাখতে হবে যাতে লেন্সে কোনও দাগ না পড়ে।
স্মার্টফোন পরিষ্কার করতে কখনোই ব্লিচ জাতীয় কোনও কিছু ব্যবহার করা উচিত নয়। 
হাইড্রোজেন পারাক্সাইড রয়েছে কেবল এমন ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করলে কোরনা ভাইরাসের মত জীবানু মুক্ত থাকবে আপনার স্মার্টফোন।