রান্নাঘরে অনেকেরই সময় নষ্ট ও নাজেহাল অবস্থা হয় সবজি কাটতে গিয়ে। তার মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল পেঁয়াজ। পেঁয়াজ কাটতে গিয়ে একটুও চোখের জল ফেলতে হবে না, এটা কী সম্ভব। তবে এমন বেশ কিছু কৌশল আছে, যার সাহায্যে চোখের জল না ফেলেই পেঁয়াজ কাটতে পারবেন আপনিও। তবে জেনে নেওয়া যাক পেঁয়াজ কাটার এই কৌশলগুলি।

আরও পড়ুন- করোনা ভাইরাসে বন্ধ হল মাস্ক রফতানি, নির্দেশিকা জারি ভারতের

পেঁয়াজ কাটার আগে নুন জলতে ভিজিয়ে রাখুন মিনিট পনেরো। তারপর কাটা শুরু করুন। নুন জল পেঁয়াজে থাকা এনজাইমকে নিষ্ক্রিয় করে ফেলে। যার ফলে আর কাটার সময় চোখ থেকে জল বেরোবে না। চপিং বোর্ডে ভিনেগার মাখিয়ে নিয়ে তারপর পেঁয়াজ কাটুন। ভিনেগারের অ্যাসিড এনজাইমকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়। এনজাইম নিষ্ক্রিয় হয়ে গেলে ঝাঁঝও বের হবে না, চোখও জ্বলবে না। পেঁয়াজের গোড়ার অংশটি যেখানে মূল থাকে তা ভাল করে কেটে ফেলে দিন। সেই সঙ্গে পেঁয়াজের উপরের আস্তরটিও ফেলে দিন। বেশির ভাগ এনজাইম থাকে এই গোড়ায় ও ওপরের আস্তরণে। ফলে পেঁয়াজ কাটতে গিয়ে আর চোখের জল ফেলতে হবে না।

আরও পড়ুন- সাধ্যের মধ্যে বিক্রি শুরু হল সুজুকি-র নতুন এই স্কুটি, রইল বিস্তারিত

 এছাড়া পেঁয়াজের শুকনো খোলা ছাড়িয়ে নিয়ে ৩০ মিনিটের মতো ফ্রিজে রেখে দিন। তারপর ভাল করে ধুয়ে নিয়ে কাটুন। ঠাণ্ডায় পেঁয়াজের এনজাইম নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়, ফলে চোখ জ্বলার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়। পেঁয়াজ কাটার সময়ে একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে রাখতে পারেন কাছে। এতে পিঁয়াজ থেকে নির্গত এনজাইমের ঝাঁঝ আপনার চোখের জলের সঙ্গে বিক্রিয়া করার আগেই আগুনের শিখা তাকে আকর্ষণ করবে। পেঁয়াজ কাটার সময় জোরে ফ্যান চালিয়ে নিন। এতে পেঁয়াজের থেকে থেকে নির্গত এনজাইমের ঝাঁঝ চোখ অবধি পৌঁছতে পারবে না। ধারালো ছুরি বা বটি ব্যবহার করুন পেঁয়াজ কাটার সময়ে। কেননা এতে কোষগুলো কম ক্ষতিগ্রস্ত হবে, ফলে এনজাইম কম নিঃসৃত হবে আর চোখও জ্বলবে কম। পেঁয়াজের শুকনো খোশা ছাড়িয়ে টুকরো করে ঠাণ্ডা জলে ভিজিয়ে রাখুন। জলতে নিঃসৃত এনজাইম ধুয়ে যাবে, ফলে চোখ জ্বলবে না।