অল্প সময়ের জন্য ছুটি কাটানোর কথা ভাবছেন! তা হলে ঘুরে আসতে পারেন কলকাতা থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত সুন্দরগ্রাম থেকে। উত্তর ২৪ পরগনার রাজেন্দ্রপুরে এই গ্রাম। 

ব্যস্ততার যুগে কোম্পানির টার্গেটের চোখ রাঙানি থাকবেই। তা বলে নিজেকে যন্ত্র বানিয়ে ফেলবেন না। হাতে অল্প সময়ে তাই ঘুরে আসুন কাছেরই অজানা নির্জন গ্রাম থেকে। গেলেই বুঝকে পারবেন, সুন্দরগ্রামের নাম সার্থক। 

বর্ষায় ঘুরে আসতেই পারেন সুন্দরগ্রাম থেকে। কারণ এই সময়ে যেন আরও সবুজ হয়ে ওঠে সুন্দরগ্রাম। এছাড়া গ্রাম বাংলার অনুভূতি উপভোগ করতে রয়েছে মাটির ঘর। রয়েছে মাছ ধরার সুযোগ। হাতে দুটো দিন সময় থাকলে আরও ভাল ভাবে দেখতে পাবেন সুন্দরগ্রাম। 

সুন্দরগ্রাম সবুজে ভরা, তাই এখানে আনাগোনা লেগেই থাকে নানা রকম পাখির। পাখির কলতানে মেতে থাকে সুন্দরগ্রামের মানুষ ও পর্যটকরা। এছাড়াও সুন্দরগ্রামের কয়েক কিলোমিটারের মধ্যেই রয়েছে বিদ্যাধরী নদী। তার পাশে রয়েছে মালঞ্চ গ্রাম। মাছ খেতে ভালবাসলে অবশ্যই এখানে যান। গরম গরম মাছ ভাজা খেতে পারবেন। থাকা খাওয়া সব মিলিয়ে ৩০০০-৪০০০ টাকা খরচ হবে। 

কী ভাবে যাবেন- 

১) যদি গাড়িতে করে যান, সায়েন্স সিটি থেকে বাসন্তী হাইওয়ে ধরে নিন। 

২) বাসে গেলে কলকাতা থেকে মালঞ্চগামী বাসে উঠুন। রাজেন্দ্রপুর নিয়ে যাবে আপনাকে। আড়াই ঘণ্টায় পৌঁছতে লাগবে রাজেন্দ্রপুরের সুন্দরগ্রামে। 

কোথায় থাকবেন- 

১) এখানে গ্রাম বাংলার জীবনযাপন উপভোগ করতে রয়েছে বেশ কিছু মাটির ঘর। কিছু ঘরে রয়েছে এসি-র ব্যবস্থাও। রয়েছে বাঁশের তৈরি বিছানা। 

২) পাঁচটি মাটির ঘর আছে। তাদের নাম- আকাশ, বাতাস, দোতারা, ধামসা, মাদল। 

৩) গ্রাম বাংলার চিত্র ফোটাতে রয়েছে পুকুরে স্নানের ব্যবস্থাও। মাছও ধরতে  পারেন।