শীতের রুক্ষ এই আবহাওয়ায় ত্বকের চাই বাড়তি যত্ন। বাইরের আর্দ্র আবহাওয়া ত্বককে রুক্ষ ও প্রাণশূন্য করে দেয়। শীতের রুক্ষ আবহাওয়ার প্রভাবে খারাপ হয়ে যায় ত্বকের অবস্থা। তাই প্রাণবন্ত ত্বক ফিরে পেতে চাই ত্বকের বাড়তি যত্নের। আর মেক-আপ-এর সরঞ্জামগুলিকেও ত্বকের সুস্থতার জন্য কয়েকদিনের জন্য রাখুন দূরে। সারাদিন কাজের ব্যস্ততা আর খাওয়া-দাওয়ার অনিয়মের ফলে এখনই যদি ত্বকের যত্ন নেওয়া শুরু না করেন, তবে পড়তে হতে পারে জটিল সমস্যায়। তাই বজায় রাখুন রোজকার নিয়মে ত্বকের যত্ন।  কিন্তু এই সময়ে বিশেষ কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখলে আপনার ত্বককে অতিরিক্ত এই শুষ্কতা ও আর্দ্রতা থেকে রক্ষা করতে পারবেন। তবে একনজর জেনে নেওয়া যাক নিয়মগুলি।

আরও পড়ুন- অতিথিদের আমন্ত্রন হোক, আপনার বানানো গাজরের সন্দেশ দিয়ে

এই আবহাওয়ায় ত্বক এমনই শুষ্ক হয়ে পড়ে তাই অতিরিক্ত স্ক্রাবিং করা উচিত নয়। এক্ষেত্রে ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করে ত্বক পরিষ্কার রাখুন। ওটমিল ও কফি পাউডার ব্যবহার করতে পারেন এবং ময়েশ্চারাইজার হিসেবে শেষে অবশ্যই ক্রিম ব্যবহার করুন। এই সময়ে আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে ও ঠান্ডা বাতাস আপানর ত্বকের প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা কেড়ে নিতে পারে। তাই নিয়মিত লোশন বা ভালো ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন। তবে অতিরিক্ত ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহারের ফলে ত্বক অয়েলি হয়ে কালচে দেখাতে পারে। তাই যে কোনও ধরনের ত্বকের জন্য জেল বা ক্রিম জাতীয় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিৎ।

আরও পড়ুন- প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠেই অনর্গল হাঁচি, মারাত্মক সমস্যায় ভুগছেন জেনে নিন প্রতিকার

 

প্রাকৃতিক তেল ত্বকে বয়সের ছাপ দূর করার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পুষ্টি জোগান দেয়। তাই ত্বকের স্তরকে রক্ষা করতে এবং উজ্জ্বলতা বজায় রাখতে স্নানের আগে এই তেল ব্যবহার করুন। এর পাশাপাশি অবশ্যই মনে রাখতে হবে, গরম জল আপনার ত্বকের প্রাকৃতিক তেল শোষণ করে নেয়। তাই এই শীতে বেশি গরম জল ব্যবহার না করে হালকা গরম জল ব্যবহার করুন,যা আপনার ত্বকের সঙ্গে সহজেই খাপ খাবে। সব সময়ই পাতে রাখুন পুষ্টিকর খাবার। বিশেষ করে যেসব খাবার ওমেগা ৩ সমৃদ্ধ সেই সব খাবার শীতে ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। যেমন বাদাম ও সবজি এই সময় ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। পাশাপাশই মিষ্টি জাতীয় এবং ফ্যাট জাতীয় খাবার কম খাবেন কারণ এতে ত্বকে ব্রণের সমস্যা দেখা দিতে পারে।