কোনও বিশেষ দিন, বিশেষ ঘটনা, অর্জন বা বিখ্যাত কোনও ব্যক্তির জন্ম - মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণ করতে গুগলের হোম পেজে তাদের চিরাচরিত লোগোর পরিবর্তে ব্যবহৃত লোগো হল 'ডুডল'। যা কোনও বিশেষ দিনে গুগলের হোমপেজে তাদের নিজস্ব লোগোর পরিবর্তে ব্যবহার করে। গুগলের প্রথম ডুডল যোগ হয় ১৯৯৮ সালের ৩০শে আগস্ট বার্নিং ম্যান ফেস্টিভ্যালের দিন। এটি ডিজাইন করেছিলো গুগলের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেইজ ও সার্গেই বিন। তার কারণ ছিল মূলত গুগল ব্যবহারকারীদের তাদের অনুপস্থিতি সম্পর্কে বার্তা দেওয়া। পরবর্তীতে গুগল ডুডল ডিজাইন করার জন্য "ডুডলার" নামে কর্মী নিয়োগও করে সংস্থা।

আরও পড়ুন- করোনা আতঙ্কের আবহেই, বিশ্বজুড়ে পৃথিবী রক্ষার শপথ নেবে কয়েক কোটি মানুষ

২০১০ সালের জানুয়ারিতে গুগল, স্যার আইজ্যাক নিউটন এর সম্মানার্থে প্রথমবার এনিমেটেড ডুডল প্রকাশ করে। প্যাক-ম্যান, উদযাপন উপলক্ষে প্রথমবারের মতো ইন্টারঅ্যাক্টিভ ডুডল প্রকাশ্যে আসে। তখন থেকে ডুডলে হাইপারলিংক দেওয়া শুরু হয়। যাতে ক্লিক করলে উক্ত বিষয়বস্তু সম্পর্কিত গুগলে সার্চ ফলাফল দেখানো হয়। ২০১৪ সাল পর্যন্ত গুগল আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ডুডল মিলে মোট ২০০০ এরও বেশি সংখ্যক ডুডল তাদের হোম পেজে প্রদর্শন করেছে।

আরও পড়ুন- তাক লাগানো ফিচার, স্মার্টফোনের পর এবার রোবট ভ্যাকুয়াম ক্লিনার হাজির করল এমআই

বুধবার ২২ এপ্রিল দুনিয়া জুড়ে পালিত হচ্ছে বিশ্ব বসুন্ধরা দিবস বা ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিনের মতো এদিনও বিশেষ ডুডল তৈরি করল গুগল। এবারের ডুডল একটি ইন্টার‌্য়াক্টিভ গেম। মৌমাছি ও ফুলের রোমাঞ্চকর এক গেম দিয়ে তৈরি হল এই ডুডল। গত ২২ বছর ধরে প্রতি বছর নানা ভাবে এই ডুডল-এর মাধ্যমে মানুষের মধ্যে বসুন্ধরা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর কাজে ব্রতী গুগল। এই বছর তাই লকডাউনের ফলে ঘরবন্দি মানুষের জন্য একটু আলাদা ভাবেই আজকের ডুডল। 

যদি আপনি আর্থ ডে ২০২০- এর এই বিশেষ গুগল ডুডল ব্লগে খেলাটি চালিয়ে যেতে থাকেন। তবে এটির সহ্গে আপনি দ্য হানিবি সংরক্ষণের প্রতিষ্ঠাতা গিলারমো ফার্নান্দেজের থেকে একটি চমত্কার ভূমিকাও পেয়ে যাবেন, যিনি আর্থ ডে ডুডলে তাঁর কিছু ভাবনা এবং কীভাবে আপনার স্থানীয় পরিবেশ ও মৌমাছিদের রক্ষা করতে পারবেন সে সম্পর্কে কিছু টিপস দেবেন। আর কিছু না হোক গুগল ডুডল-এই এই গেমটি অত্যন্ত মজার তা হলফ করে বলতে পারি। দেরি না করে আপনিও একবার ট্রাই করে দেখুন গেমটি।