সৌরজগতের এই নীল গ্রহের সুস্থতার দিকে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে এবং একইসঙ্গে পরিবেশ সংরক্ষণের জন্য ও পৃথিবীকে ধন্যবাদ জানাতে ২২ এপ্রিল বিশ্বব্যাপী পালিত হতে চলেছে ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে। প্রতি বছর ২২ শে এপ্রিল দিনটিতে বিশ্ব আর্থ দিবসটি পালিত হয়। এই বছরে বিশ্ব জুড়ে করোনভাইরাস মহামারীর মধ্যেই পালন করা হবে বিশেষ এই দিনটি। বিশ্বের বেশ কিছু দেশে কোবিড-১৯ এর কারণে লকডাউন চলছে। এই কারণেই এই দিনটি পালনের জন্য বিশ্বের সতেচন নাগরিকরা প্রত্যেকেই ডিজিটাল মাধ্যেমর সাহায্য নিয়ে নিরাপদ ও দায়িত্বপূর্ণ ভাবে ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে পালন করছে। 

আরও পড়ুন- রামকৃষ্ণের আদর্শে হতে চেয়েছিলেন সন্ন্যাসী, আজ অ্যান্টিবায়োটিক ও কেমোথেরাপির জনক

পরিবেশ সংরক্ষণ সম্পর্কে সচেতনতা এবং পৃথিবীর অবস্থা বিশ্লেষণের জন্য ১৯৭০ সাল থেকে আর্থ ডে বার্ষিক অনুষ্ঠান হিসাবে পালিত হচ্ছে। ইভেন্টটি এখন আর্থ ডে নেটওয়ার্ক দ্বারা বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে এবং প্রতি বছর ১৯৩ টিরও বেশি দেশে এটি বিশেষ এই দিনটি উদযাপন করে। এই বছর ৫০তম ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে পালিত হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। এইদিনে কয়েক কোটি মানুষ এই গ্রহটি রক্ষার জন্য শপথ নেবে।

আরও পড়ুন- লকডাউনের ১১ দিনে প্রায় ৯২ হাজার গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ জমা পড়েছে জাতীয় মহিলা কমিশনে, জানাল সমীক্ষা

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে, কেন আমরা ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে পালন করি। এর কারণ হল এটি এক কথায় পরিবেশ রক্ষার এক অন্যতম দিক। জল, বায়ু ও পরিবেশ দূষণের কারণে পৃথিবীর বেশিরভাগ অংশ যখন প্রায় ক্ষয়-ক্ষতির সীমা অতিক্রমের পথে। সেই সময়ে প্রাণীর বাসযোগ্য অন্যতম এই গ্রহ রক্ষার জন্য ১৯৭০ সালে নিউইয়র্ক শহরের কয়েক লক্ষ মানুষ পৃথিবীর স্বাস্থ্য রক্ষার দাবিতে রাস্তায় নেমেছিলেন। তাঁদের দাবি ছিল পরিবেশ রক্ষার জন্য আরও কঠোর আইনি ব্যবস্থার। ওয়ার্ল্ড আর্থ ডে-র আয়োজন ছিলেন ২৫ বছর বয়সী ডেনিস হেইস নামে এক ছাত্রী। বর্তমানে এই দিবস পৃথিবীর বৃহত্তম নাগরিক ইভেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে।