এই তপ্ত দিনে একটু গলা ভেজাতে অনেকেই বেছে নেন একটু ডাবের জল। স্বাধারণভাবে অনেকের ধারনা, ডাবের জল শরীর ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু এছাড়াও যে ডাবের জলে আরও কত গুণ লুকিয়ে রয়েছে, তা হয়তো এখনও অনেকেরই অজানা। জেনে নিন এক গ্লাস ডাবের জলের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে রয়েছে কী কী স্বাস্থ্যগুণ - 

১) ডিহাইড্রেশন- গরমের দিনে সবথেকে বড় যে সমস্যা সেটা হল, ডিহাইড্রেশন-এর সমস্যা। অতিরিক্ত রোদ থেকে ঘামের ফলে দেহে জলের ঘাটতি দেখা দিলে ডিহাইড্রেশন হয়ে থাকে। ডাবের জল শরীরে এই জলের ঘাটতি পূরণ করতে সাহায্য করে। 

২) রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে- রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে ডাবের জল বেশ খুবই ভাল কাজ দেয়। কারণ এর মধ্যে থাকা ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম ও ভিটামিন সি রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। 

৩) তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা- তৈলাক্ত ত্বকের যাবতীয় সমস্যায় ডাবের জল বিশেষ কার্যকরী। ডাবের জল খাওয়ার পাশাপাশি খানিকটা একটু মুখেও মেখে নিন। তৈলাক্ত ত্বকে যেসব সমস্যা দেখা দেয়, ডাবের জল তা দূর করতে সাহায্য করে। 

৪) হৃদরোগের সমস্যা কমাতে- ডাবের জল হার্টকে সুস্থ ও সবল রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। কারণ এটি হাইপারটেনশন কমায়। যা পরোক্ষভাবে হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

 

৫) চুলের সমস্যা দূর করতে- ত্বকের পাশাপাশি চুলের সমস্যাও দূর করতে ডাবের জল খুবই কার্যকরী। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন, মিনারেল, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ-এর মতো খনিজগুলি প্রাকৃতিকভাবে চুলের গোড়ায় পুষ্টি জোগায় এবং চুলকে ভাল রাখতে সাহায্য করে। 

৬) ট্যান দূর করতে- রোদের ফলে ত্বকে ট্যানের সমস্যা দূর করতে ডাবের জল খুবই উপকারী। আর এই ট্যান রিমুভের কাজ করে ডাবের জল। তাই নিজের ফেসপ্যাকের সঙ্গে ডাবের জল মিশিয়ে নিয়ে তা মুখে লাগিয়ে নিলে খুব সহজেই ট্যান রিমুভ হয়ে যাবে। 

৭) ত্বকের ইনফেকশন কমাতে- ত্বকের যেকোনও ফাঙ্গাল এবং ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন কমাতে ডাবের জল বিশেষভাবে সাহায্য করে। 

তাই প্রতিদিন একগ্লাস করে ডাবের জল খান আর দূরে রাখুন হাজারও সমস্যা।