বিশ্বের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা ক্যান্সার-সহ ওরাল সমস্যায় ভুগছে, জেনে নিন এই বিষয়ে কি বলছে সমীক্ষা

| Nov 22 2022, 03:09 PM IST

Oral care
বিশ্বের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা ক্যান্সার-সহ ওরাল সমস্যায় ভুগছে, জেনে নিন এই বিষয়ে কি বলছে সমীক্ষা
Share this Article
  • FB
  • TW
  • Linkdin
  • Email

সংক্ষিপ্ত

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বের প্রায় ৪৫ শতাংশ মানুষ মুখের রোগে ভুগছেন যেমন মাড়ি থেকে রক্ত ​​পড়া, দাঁতের ক্ষয় বা ক্যান্সার ইত্যাদি। ওরাল সমস্যার এই পরিসংখ্যানগুলি ছাড়াও এর পিছনের গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

দাঁতের সমস্যা যেমন মাড়ি থেকে রক্ত ​​পড়া বা মুখের ক্যান্সারের ঘটনা দ্রুত বাড়ছে। এই সংখ্যা এত দ্রুত বাড়ছে যে বিশ্বের জনসংখ্যার প্রায় ৪৫ শতাংশ ওরাল সমস্যায় ভুগছে। এই তথ্য জানিয়েছে খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা । প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে ওরাল কেয়ার সম্পর্কিত পরিষেবাগুলি অনেকের কাছে অগ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছে, তাই জনসংখ্যার উপর অসম প্রভাব পড়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বের প্রায় ৪৫ শতাংশ মানুষ মুখের রোগে ভুগছেন যেমন মাড়ি থেকে রক্ত ​​পড়া, দাঁতের ক্ষয় বা ক্যান্সার ইত্যাদি। ওরাল সমস্যার এই পরিসংখ্যানগুলি ছাড়াও এর পিছনের গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

Subscribe to get breaking news alerts

রিপোর্ট কি বলছে জেনে নিন-

গত ৩০ বছরে, এই ওরাল সমস্যার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ৩০ বছরে মুখের গহ্বরের সমস্যায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ১০০ মিলিয়ন বেড়েছে। প্রায় ১৯৫টি দেশে এই সমস্যা নিয়ে গবেষণা করা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন জনসংখ্যক মানুষ মুখ সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। প্রতি বছর, প্রায় ৩৮০,০০০ লোক নতুনভাবে ওরাল ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়।

মুখের সমস্যার প্রধান কারণ

আসলে, মাড়ির ব্যথা, রক্তপাত এবং দাঁতের ব্যথা আজকাল খুব সাধারণ। হার্ট এবং ডায়াবেটিসে আমরা যেভাবে নিজেদের যত্ন নিই, ঠিক একইভাবে মুখের স্বাস্থ্যেরও যত্ন নেওয়া জরুরি। তবে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাব এবং সঠিক আয়ের অভাবে বেশিরভাগ মানুষই ওরাল সমস্যার শিকার হন।

এই অভ্যাসগুলি আপনাকে খারাপ মুখের স্বাস্থ্যেরও শিকার করে তোলে

ওরাল স্বাস্থ্যের অবনতির ঘটনা দিন দিন বাড়ছে এবং খারাপ অভ্যাসও এর পিছনে একটি কারণ হতে পারে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অতিরিক্ত চিনি, তামাক সেবন এবং অ্যালকোহল গ্রহণের মতো অভ্যাসের কারণে মুখের স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে। প্রাথমিকভাবে পচা বা গহ্বর হতে পারে, তবে যত্ন না নিলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে। তামাক ক্যান্সার সৃষ্টি করে এবং যারা এটি সেবন করে তারা এই সত্যটি জেনেও এই অভ্যাসটি গ্রহণ করে চলেছে।