সাম্প্রতিককালে যেকোনও সেক্টরেই কাজের ধারায় এক অদ্ভুত পরিবর্তন চোখে পড়ে। সোম থেকে শুক্র মানেই কাজের আর শনি-রবিবার মানেই ছুটি- কর্মক্ষেত্রে এই ধ্যান-ধারণা বদলেছে। এখন আর উইকএন্ড মানেই ছুটি এই মানসিকতা রাখলে কর্মক্ষেত্রে পাল্লা দিয়ে টিকে থাকা দেওয়া মুশকিল। তবে অনেকসময়ে এমন হয় যে, ছুটির দিন বা সপ্তাহন্তে অফিস যাওয়ার ইচ্ছা একেবারেই থাকে না। কিন্তু কাজের জায়গায় ব্যক্তিগত ইচ্ছা-অনিচ্ছা যেহেতু প্রাধান্য পায় না, সুতরাং অনেকে অফিস যাওয়াটাকে একেবারেই উপভোগ করেন না। 

কিন্তু ছুটির দিনে বা সপ্তাহন্তে অফিস যাওয়ার কিন্তু অনেকগুলি ইতিবাচক দিক রয়েছে। এক ঝলকে দেখে নিন সেগুলি কী কী।  

১) সকলেরই প্রবণতা থাকে সপ্তাহন্তে অফিস ছুটি নিয়ে পার্টি করা। আর সেই সুযোগটাকেই কাজে লাগান আপনি। সপ্তাহন্তে অফিসে কম লোক থাকার ফলে কাজের একটা সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় থাকে, যা আপনার কাজের জন্য অত্যন্ত সহায়ক হবে। এই বেলা সেরে নিতে পারেন পেন্ডিং থাকা কাজও।

২) শনি-রবিবার ও অন্যান্য ছুটির দিনে কোম্পানীর শীর্ষ কর্তারা সাধারণত ছুটিতে থাকেন। তাই একেবারে নিজের মতো করে কাজ করার এই সুযোগটি কখনওই হাতছাড়া করবেন না। 

৩) অন্যান্য দিনের তুলনায় ছুটির দিনে কাজের চাপ তুলনামুলকভাবে কম থাকে, তাই এইসব দিনে অফিস গেলে কাজ তাড়াতাড়ি শেষ করে বাড়ি ফেরার অপশনও হাতে থাকে। 

৪) শনি-রবিবার ও অন্যান্য ছুটির দিনে কিন্তু রাস্তাঘাটও তুলনামুলক ফাঁকাই থাকে, তাই কাজের দিনের মতো অত কষ্ট করে অফিস পৌঁছতে হয় না।

৫) অনেকসময়ে কাজের চাপে সহকর্মীদের সঙ্গে বিশেষ সময় কাটানো হয়ে ওঠে না, তাই ছুটির দিন বা উইকএন্ডে একসঙ্গে অফিসের পর একটা ছোটখাটো নৈশভোজে যোগ দিতে পারেন। এতে সহকর্মীদের আরও কাছ থেকে জেনে নেওয়ার সুযোগ থাকবে।

৬) সপ্তাহন্তে বা অন্যান্য ছুটির দিনে মাল্টিপ্লেক্স, শপিং মল এবং অন্যান্য পাবলিক প্লেসে খুবই ভীড় হয়। সেইকারণে এই দিনগুলি অফিসের কাজে মন দিয়ে, ভীড় এড়াতে বাকি দিনগুলিতে পরিবারকে নিয়ে বেড়িয়ে আসুন।