প্রতিটা দিনই বিশ্ব মাতৃদিবস। মায়ের কোনও বিকল্প নেই, প্রতিটা দিনই মায়ের। কিন্তু সারা বিশ্বে একটি বিশেষ দিন এই বিশ্ব মাতৃদিবস পালন করা হয়। সেটি হল ১০ মে। অর্থাৎ আগামীকাল সারা বিশ্ব জুড়ে পালন করা হবে বিশ্ব মাতৃদিবস।  এই বিশেষ দিনটিকে মায়েদের সম্মান জানানোর জন্যই নির্দিষ্ট করা হয়েছে।  মা এমনই একটা জিনিস যার সঙ্গে পৃথিবীর কোনও দামী বস্তুর তুলনা হয় না। প্রতিটি মানুষের জীবনেরই অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ মা। আর এই মায়ের জন্য কোনও বিশেষ দিনের দরকার হয় না। মায়ের জন্য সম্মান, ভালবাসা, শ্রদ্ধা জানাতেই এই বিশেষ দিনের আয়োজন। মায়ের জন্য নির্ধারিত এই স্পেশ্যাল দিনটি শুধু মায়ের। তাই বিশেষ এই দিনে প্রত্যেকেই নিজের মতোন করে মাকে বিশেষ সম্মান জানায়।

আরও পড়ুন-ডিজিটাল কার্ড ছাড়াই এবার মিলবে রেশন, বড় সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের...

কবে প্রথম শুরু হল বিশ্ব মাতৃ দিবস

বিশ্ব মাতৃদিবস সর্বপ্রথম শুরু হয়েছিল আমেরিকাতে। আমেরিকার আনা জার্ভিস নিজের মাকে খুবই ভালবাসতেন। নিজেও কখনও বিয়ে করেননি। তাই মায়ের মৃত্যুর পরই মাকে বিশেষ শ্রদ্ধা জানাতে এই বিশেষ দিনটার প্রচলন শুরু করেন।  তিনিই প্রথম ১৯০৫ সালে মাতৃদিবসকে স্বীকৃত দেওয়ার জন্যই লড়াই শুরু করেছিলেন। বিশ্বের সমস্ত মায়েদের জন্যই  ছিল তার এই লড়াই। শুরুর দিকে এই প্রস্তাব খারিজ করে দিয়েছিল মার্কিন কংগ্রেস। অবশেষে আমেরিকার সব প্রদেশ তার প্রস্তাবে রাজি হয়ে ওই দিন ছুটি পালন করে। তারপর থেকেই সারা দেশে এই দিনটা খুব ধুমধাম করে পালন করা হয়।

আরও পড়ুন-ভারতীয় মেয়েরা কোন বয়সে যৌনমিলনে লিপ্ত হন, সমীক্ষায় উঠে এল ভয়ঙ্কর তথ্য...

 


কেন এই বিশেষ দিনে পালন

১৯১৪ সালের ৯ মে আমেরিকান প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন একটি আইন পাশ করেছিলেন। আর তাতেই বলা হয়েছিল মে মাসের দ্বিতীয় রবিবারই এই বিশ্ব মাতৃদিবস পালন করা হবে। তারপর থেকেই আমেরিকা সহ ভারত এবং বেশ কিছু দেশে মে মাসের দ্বিতীয় রবিবারই এই বিশেষ দিন পালন করা হয়। তারপর থেকে গোটা দুনিয়া মাতৃদিবস পালন করা শুরু করে, বিভিন্ন দিনে বিভিন্ন নামে।  ২ ফেব্রুয়ারি মাতৃদিবস পালন করা হয় গ্রিসে। ব্রিটিনে মার্চ মাসের চতুর্থ রবিবার মাতৃদিবস পালিত হয়।  অন্যদিকে  বর্তমান রানি সিরিকিটের জন্মদিনে আগস্ট মাসে থাইল্যান্ডে পালিত হয় মাতৃদিবস। তবে ভারত সহ পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার পালিত হয় বিশ্ব মাতৃদিবস।