বাথরুম এমন একটা জায়গা, আপনি সেটাকে যতই পরিষ্কার রাখুন না কেন সেখানে আদ্রর্তা, জীবাণু থাকবেই। বাথরুমের পরিবেশটা বরাবরই একটু আলাদা হওয়া দরকার।  এমন অনেক ধরনের জিনিস বাথরুমে রাখা হয় যা স্নানের জন্য বা সৌন্দর্যচর্চায় খুব দরকারি হলেও সেগুলিকে বাথরুমের বাইরে রাখা দরকার। এই জিনিসগুলি বাথরুমের মধ্যে রাখলে তার কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যায়। এমনকী খুব তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। নিজেক অজান্তে বিপদ না ডাকতে চাইলে অবশ্যই এড়িয়ে চলুন এই বিষয়গুলি।

আরও পড়ুন-ধনতেরাসে বিপুল ছাড় মিলছে সোনায়, আকর্ষণীয় অফার হিরের গয়নাতেও...

টুথব্রাশ
সাধারণত টুথব্রাশ আমরা প্রত্যেকেই বাথরুমে রাখি। টয়লেটে ফ্লাশ করার সময়ে বাতাসে অনেক জীবাণু ছড়িয়ে যায়। আর তার অনেকটাই টুথব্রাশে আটকে যায়। সমস্যাটি এড়াতে টুথপেস্ট বাইরে রাখুন।

তোয়ালে
বাথরুমে আর্দ্রতা বেশি থাকায় সেখানে খুব বেশি জীবাণু ছড়ায়। এ কারণে তোয়ালেতে ফাঙ্গাস হতে পারে। তাই স্নানের পর তোয়ালে বারান্দায় বা ফ্যানেরা নিচে শুকিয়ে নিন।

রেজার 
রেজার আমরা প্রত্যেকেই বাথরুমে রাখি।  কিন্তু বাথরুমে রাখার কারণেই তা ভোতা হয়ে যায়। এমনকী মরিচাও পড়ে যায়। রেজার একবার ব্যবহার করার পর ভাল করে শুকিয়ে নিন।  আর শুকনো কোন স্থানে রেখে দিন। এতে রেজার দীর্ঘস্থায়ী হবে।

ওষুধ
ওষুধ কখনও বাথরুমে রাখবেন না। ঘরের কোনও অন্ধকার জায়গায় বা শুকনো ড্রয়ারে ওষুধ রাখবেন বা আলমারিতে রাখতে পারেন। কিন্তু বাথরুমে নয়।বাথরুমে তাপ ও আর্দ্রতা দুটোই বেশি হয়। যার ফলে ওষুধ নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

গয়না
অনেকেই আছেন স্নানের সময় গয়না খুলে রাখেন। বিশেষত মহিলারা এটা করে থাকেন। যেমন চেন, আংটি, ইয়ারিং বাথরুমে খুলে রাখেন। কিন্তু এটা একদমই ঠিক নয়। কারণ বাথরুমের আর্দ্রতায় গয়না মরিচা ধরে যায়।