সুপার সাইক্লোন আমফান, দিঘার সমুদ্রতট থেকে ক্রমশই কমছে দূরত্ব, যার জেরে শুরু হয়েছে বৃষ্টি ও ঘণ্টায় ১০০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া, প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে ক্রমশই স্থলভাগের দিকে এগিয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন আমফান। ইতিমধ্যেই জলোচ্ছাস শুরু হয়ে গেছে দিঘার সমুদ্রে। তবে আমফান যত এগিয়ে আসবে ততই জলোচ্ছাস বাড়বে বলেও মনে করছেন অবহাওয়াবিদরা। এমন প্রাকৃতিক দুর্যোগে সরকারের তরফ থেকে ঘর থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন- করোনাই নাকি মূল কারণ, বেবি পাউডারের বিক্রি বন্ধে করে দিল বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড জনসন

তবে এমন পরিস্থিতিতে যাদের বাইরে বেড়োতে হচ্ছে বা জরুরি পরিষেবার জন্য বাইরে থাকতে বাধ্য তাঁদের সবথেকে সমস্যার বিষয় মোবাইলটিকে এই জলে সুরক্ষিত রাখা। 
আর এই মরশুমে যদি মোবাইল ভিজে যায়, তবেই সমস্যা। কারণ একেই লকডাইনের কারণে বেশিরভাগ মোবাইল সারানোর সংস্থাগুলি বন্ধ রয়েছে। ফলে মোবাইলে জল ঢুকে খারাপ হলে আর দুর্দশার শেষ নেই। কারন  আমাদের জীবনে মোবাইল এখন এতটাই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে যে মোবাইলটি বিকল হওয়া মানেই চারিদিক অন্ধকার৷ তাই আর চিন্তা না করে জেনে নেই এই অবস্থায় কিভাবে সুরক্ষিত রাখবেন আপনার ফোনকে। 

আরও পড়ুন- হাতে চিনচিনে ব্যথা নেই তো, সামনে এল করোনার নতুন এক উপসর্গ

কোনওভাবে স্মার্টফোন জলে ভিজে গেলে কোনওভাবেই ভুল করেও হেয়ার ড্রাইয়ার ব্যবহার করবেন না। এর ফলে উল্টে ফোন আরও খারাপ খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কারণ ড্রায়ারের গরম হাওয়ায় ফোনের ভিতরের সূক্ষ্ম পার্টসগুলি গলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই বৃষ্টির জলে মোবাইল ভিজে গেলে প্রথমেই ফোনটি সুইচড অফ করে দিন। এরপর ফোনটি ভালো করে মুছে ফোন থেকে সিম কার্ডও বের করে মুছে নিন। শুকনো নরম কাপড়ে ফোনে সহ সিম, মেমরি কার্ড বের করে নিয়ে ভালো করে মুছে হাওয়ায় শুকোতে দিন। প্রয়োজনে মোবাইলের স্ক্রীন গার্ড থাকলে সেটিও খুলে ফেলুন। তাতেও যদি বুঝতে পারেন মোবাইলের পার্টসে জল থেকে গিয়েছ তাহলে কিছু সময় ঘরে হাওযার শুকিয়ে নিন। বৃষ্টির মরশুমে বাইরে বেরোনোর সময় সবসময় একটি জিপলক পাউচে স্মার্টফোনটি রেখে তবেই ব্যবহার করুন।