গ্রীষ্মের দাবদাহে নাজেহাল মানুষ। বাড়ি থেকে এক পা বেরলেই ওষ্ঠাগত প্রাণ। তবুও মাথার ঘাম পায়ে ফেলেই বেরোতে হবে। যতই গরম হোক কাজকে তো আর ফাঁকি দেওয়া যায় না। তাই অগত্য়া বাড়ি থেকে বেরোতেই হয়। আর গরম বলে তো সৌন্দর্যের সঙ্গে আপোশ করা যায় না। কিন্তু মেক আপ ঠিক করে না করতে পারলে হীতে বিপরীত হতে  পারে। তাই জেনে রাখতে হবে মেক আপ করেও গরমকে ফাঁকি দেওয়ার কায়দা জেনে রাখতে হবে। জেনে নিন গ্রীষ্মে ঠিক কীভাবে মেক আপ করলে আপনাকে সতেজ লাগবে- 


১) মেক আপ ভাল করতে ত্বককে সুস্থ রাখতে হবে।  তাই ত্বক সতেজ রাখতে প্রতিদিন সকালে অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার মুখে মাখুন। ত্বক হাইড্রেটেড থাকবে।
২) ক্রিম ফাউন্ডেশন এড়িয়ে চলুন। পারলে ম্য়াট ফাউন্ডেশন ব্য়বহার করুন। রোদে বেরনোর সময়ে ফাউন্ডেশন বেসড সানব্লক ব্যবহার করা সবচেয়ে ভাল। ইউভি রশ্মি থেকেও ত্বক বাঁচাবে আর মুখ উজ্জ্বলও দেখাবে।  কোনও শিমারি ফাউন্ডেশন বা আইশ্যাডো লাগাবেন না।
৩) ‌‌‌গরমে সবচেয়ে বড় সমস্যা মেক আপ কিছুক্ষণের মধ্যেই গলে যেতে থাকে। তাই গ্রীষ্মে মেকআপে কিটে দরকার প্রাইমার। প্রাইমার ব্য়বহারে মেক আপ অনেকক্ষণ এক রকম থাকে। 
৪) মেক আপ যত পারুন হালকা রাখুন। ফাউন্ডেশন ব্যবহার না করে প্রাইমার ও সানস্ক্রিন মেখে শুধু মুখের যে অংশে দাগছোপ রয়েছে সেখানে কনসিলার লাগান। চাইলে একটু কমপ্যাক্ট মাখতে পারেন।


৫) মেকআপ শুরু করার আগে মুখে বরফ দিয়ে মাসাজ করুন কিছুক্ষণ। এতে ঘাম কম হয় এবং মেক আপ অনেকক্ষণ থাকে। 
৬) চোখের মেক আপ ভারী হলে ঠোঁটের মেক আপ যেন হালকা হয়। ন্যুড লিপ কালার ব্যবহার করুন। চোখের মেক আপ হালকা হলে ঠোঁটে উজ্জল রংয়ের ম্যাট লিপল্টিক বা লিকুইড লিপ কালার লাগান। লিকুইড লিপ কালার ব্যবহার করার আগে লিপ বাম ঠোঁটে লাগাবেন। এতে ঠোঁট শুকিয়ে যাবে না। কাজল বেশি গাঢ় করে ব্য়বহার করবেন না। এতে মুখে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকেষ। বরং ওয়াটারপ্রুফ আইলাইনার ব্য়বহার করুন। 
৭) ক্রিমি ব্লাশ বা আইশ্যাডো ব্যবহার করবেন না। অবশ্যই গরমে পাউডার বেসড আইশ্যাডো ও ব্লাশ ব্যবহার করুন। আর পারলে গ্রীষ্মের দুপুরে এগুলি ব্য়বহার করবেন না। 
৮) সমস্ত মেক আপই যেন ওয়াটারপ্রুফ হয়।
৯) গ্রীষ্মে নিজেকে সুন্দর করে তুলতে  কেবল প্রাইমার, সানস্ক্রিন, ব্য়বহার করুন। কাজল না পরে ওয়াটার প্রুফ মাসকারা লাগান। চোখ উজ্জ্বল করতে ভুরুর মেক আপ ঠিক করে করুন। যেহেতু মেক আপ হালকা, তাই উজ্জ্বল রংয়ের পোশাক পরুন।