সামনেই দিওয়ালি তাই কেনাকাটা, রূপচর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে জোর কদমে। সবে সবে শেষ হয়েছে দুর্গাপুজো। তাই সেই সময়ের প্যান্ডেল হপিং-এর রেশ থেকে গিয়েছে ত্বকে। দীপাবলিতে চাই আরও তরতাজা জেল্লাদার ত্বক। তাই রূপচর্চার করতে হবেই, আর রূপচর্চা মানেই মাস্ট হল ফেশিয়াল। নিঁখুত সৌন্দর্যের জন্য প্রয়োজন স্বাস্থ্যজ্জ্বল এবং জেল্লাদার ত্বক। এর জন্য অনেকেই শ্মরনাপন্ন হন পার্লারের। আর পার্লারে গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়া মানেই একটাই অপশন আর তা হল ফেশিয়াল। ত্বকের জন্য ফেশিয়াল অবশ্যই প্রয়োজন তবে সব সময় নয়। ফেশিয়ালের জন্যও রয়েছে কিছু নিয়ম। আর সঠিক পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিতে পারলেই থমকে যাবে আপনার বয়স।

আরও পড়ুন- ঠোঁটে কালো ছোপ বসে গিয়েছে, ঘরোয়া প্রতিকারে মুক্তি পান কয়েক মিনিটেই

তবে এই সঠিক পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিতে সবার আগে আপনাকে জানতে হবে ঠিক কত সময় পর ফেশিয়াল করা যায়। তবে এটাও ঠিক এক এক ধরণের ফেশিয়ালের ক্ষেত্রে এক এক রকম সময়ের ব্যবধান বজায় রাখতে হয়। সেই কারনে আপনাদের বোঝার সুবিধের জন্য খুব সহজ একটি পদ্ধতি বেছে নেওয়া হয়েছে। তাতে বুঝতে সুবিধে হবে ঠিক কতটা দিন পর আপনার ত্বক পরবর্তী ফেশিয়াল নেওয়ার জন্য তৈরি। 

আরও পড়ুন- এই মরশুমে টম্যাটোর সাহায্যে ত্বক করে তুলুন দিপ্তীময় ও আকর্ষনীয়

ফেশিয়াল সাধারণত দুই রকমের হয়। একটি হল বেসিক আর দ্বিতীয়টি হল অ্যাডভান্সড। এবার আপনি কোন ধরনের ফেশিয়াল করবেন তা ঠিক করুন ত্বকের ধরণ অনুযায়ী। কারও অনুরোধ রাখতে ফেশিয়াল নয়। সে ক্ষেত্রে সরাসরি না বলতে শিখুন। প্রয়োজনে ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ নিন।

ত্বক সুস্থ রাখতে সপ্তাহে একদিন নিজেই বাড়িতে নিজের ক্লিন আপ করে নিন।

আরও পড়ুন- বাজারের কেনা নয়, ভরসা রাখুন বাড়ির তৈরি স্ক্রাবারে

যদি আপনি অ্যাডভান্সড ফেশিয়াল করেন তবে অবশ্যই অন্তত ১৫ দিনের ব্যবধান রাখুন। এর মধ্যে আর কোনও ফেশিয়াল নয়। তাহলে সৌন্দর্য বৃদ্ধির ফলটা উল্টো হতে পারে।

অ্যাডভান্সড ফেশিয়াল করার পর চেষ্টা করুন অন্তত ২৪ ঘন্টা কোনও আলাদা কেমিক্যাল ব্যবহার না করতে। সে দিন মুখ ধোয়ার জন্য ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করুন। যেমন বেসন বা মধু দিয়ে মুখ পরিস্কার করুন।

বেসিক ফেশিয়াল করলে অন্তত ১ সপ্তাহের  ব্যবধান রাখুন। এর মধ্যে আর কোনও ফেশিয়াল নয়।

ড্রাই, সাধারণ, ওয়েলি না কি সেনসেটিভ, ত্বক অনুযায়ী বেছে নিন কোন ধরনের ফেশিয়াল ফুটিয়ে তুলবে আপনার ত্বকের সৌন্দর্য।