সিকিম শহর মানেই অনেকে ভেবে থাকেন গ্যাংটক, নাথুলা, জুলুক পেলিং প্রভৃতি। কিন্তু আসা যাওয়ার মাঝে পছে পড়ে কত চেনা অচেনা ছোট খাটো গ্রাম। যেখানে দিয়ে ঝড়ের বেগে গাড়ি চলে যায়। নেমেও দেখা হয়ে ওঠে না অধিকাংশ। এমনই একটি ছোট এলাকা হল আরিতার। অনবদ্য এই এলাকাতে কাটিয়ে নেওয়াই যায় দুই রাত্রী। 

কী দেখবেনঃ এই জায়গাতে দেখার মত রয়েছে অনেক কিছুই। কিছুটা গেলেই পাহাড়ের কোলে চোখে পড়ে এক বিস্তির্ণ এলাকা জুড়ে কৃত্রিম লেক। যার চারপাশ জুড়ে রয়েছে পাইন বন। এখানেই বোর্টিং করা যাবে, বেশ কিছুটা সময় পাহাড়ের কোলে একাই কাটিয়ে নেওয়া যাবে। এছাড়াও রয়েছে বেশ কয়েকটি মনাস্ট্রি। 

কীভাবে যাবেনঃ রেলপথে কিংবা বিমান পথে পৌঁছে যেতে হবে শিলিগুড়ি কিংবা বাগডোগরা। সেখান থেকেই গাড়ি বুক করে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে আরিতার। নয়তো দার্জিলিং, সিকিম ট্রিপের সঙ্গেই হাতে রাখতে পারেন দুটি দিন। প্রকৃতির মনোরম পরিবেশে কাটিয়ে আসাই যায় কয়েকদিন। 

কোথায় থাকবেনঃ এই জায়গা এখনও পর্যন্ত তেমন একটা প্রচলিত না হলেও বেশ কয়েকটি সুন্দর হোটেল এখানে দেখতে পাওয়া যায়। কম খরচে নতুন হোটেল গুলিতে অনায়াসে দুরাত্রী যাপন করতে পারেন। 

খরচ কতঃ এই জায়গাতে ঘুরতে গেলে মাথা পিছু খরচ হবে সাত হাজার টাকা। যদি তার সঙ্গে সিল্ক রুট কিংবা জুলুক যোগ করে নেওয়া যায়, সেক্ষেত্রে খরচ বাড়তে পারে। এখানে খাবারও খুব ভালো। সঙ্গে পরিচয় পত্র রাখা প্রয়োজনীয়।