আতঙ্কের আর এক নাম করোনা। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই করোনা আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কে জেরবার বিশ্ববাসী । অনেক সময়েই আমরা একে অপরের জিনিস ব্যবহার করে থাকি। সে পরিবারের মধ্যে হোক বা পরিবারের বাইরে হামেশাই এগুলি আমরা করে থাকি। কিন্তু নিজেদের অজান্তেই আমরা বিপদ ডেকে আনছি।  

আরও পড়ুন-হোম কোয়ারেন্টাইে থাকাকালীন মেনে চলুন স্বনামধন্য পুষ্টিবিদ রুজুতা দিভেকর এই ডায়েট চার্ট...

অন্যের শরীরের মধ্যে থাকা নানরকম ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস যা একজনের থেকে অপরজনের শরীরে প্রবেশ করে। শুধু হাঁচি বা কাশির মাধ্যমেই রোগজীবাণু ছড়ায় এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। দৈনন্দিন জীবনের ব্যবহার্য অনেক জিনিস থেকেও অনায়াসেও এই করোনা ভাইরাস ছড়াতে পারে। নিজেকে সুস্থ রাখতে আজ থেকেই বন্ধ করে দিন এগুলো করা। বিশেষ কিছু জিনিস রয়েছে যেগুলি একদম ব্যবহার করা উচিত নয়, তাহলেই আসতে চলেছে মারাত্মক বিপদ। 

আরও পড়ুন-ঋতুচক্র চলাকালীন কি যৌনমিলন নিরাপদ, জেনে নিন বিশেষজ্ঞের মতামত...

জামাকাপড়

একজনের পরা পোশাক আবার আর একজন পরে নিলেন। এতেও ছড়াতে পারে ভাইরাস। তাই ভুল করেও  এই কাজগুলি করবেন না। যতটা পারবেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকার চেষ্টা করুন।

তোয়ালে

অনেকসময়েই একজনের তোয়ালে আরেকজন ব্যবহার করে। একজনের তোয়ালে আরেকজন ব্যবহার করলে ফাঙ্গাল ইনফেকশন, এবং ব্যাকটেরিয়া ছড়াতে পারে। যার থেকে ব়্যাশ , ব্রণ, স্কিনের নানা সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে ভিতরের কোনও সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এক থেকে দুইবার ব্যবহারের পরে তোয়ালে ভাল করে ধুয়ে নিয়ে রোদে শুকিয়ে নিন।

চিরুনি

হাতের কাছে যেই চিরুনি পান সেটা দিয়েই চুল আঁচড়িয়ে নিচ্ছেন। তাহলে সাবধান হওয়া ভীষণ জরুরি। কারণ চিরুনির থেকে নানান রোগ একজনের শরীরে ছড়িয়ে যেতে পারেন। যেমন- উকুন, খুশকি ইত্যাদি। এমনকী মাথার স্ক্যাল্পে ইনফেকশনও হতে পারে। তাই সবার আগে চিরুনি আলাদা করুন। অন্য কেউ যদি আপনার চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়িয়ে ফেল তাহলে তা সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন।

হেডফোন

গান শোনার জন্য অন্যের হেডফোন নেওয়ার অভ্যেস আমাদের অনেকেরই রয়েছে। এই কারণের জন্য কানের মধ্যে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ হতে পারে। এর থেকে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। আপনার অজান্তে কেউ যদি আপনার হেডফোন ব্যবহার করে থাকে,সেটা ফেরত পাওয়ার পরে রাবিং অ্যালকোহল দিয়ে ভাল করে মুছে পরিস্কার করে নিন।

কসমেটিকস

কসমেটিকস এর কথা বলতে গেলে মেয়েদের এই অভ্যেসটাই বরাবরই রয়েছে। আইলাইনার থেকে লিপস্টিক,কনসিলার, মেক আপ ব্রাশ ইত্যাদি অনেকেই একে অন্যেরটা ব্যবহার করে। কিন্তু এটা না করাই ভাল। এমনকী মেক আপ স্টোরে ট্রায়াল দেওয়ার জন্য যেগুলো ব্যবহার করা হয় সেগুলিও ব্যবহার না করাই ভাল। কসমেটিকস থেকেও নান জীবাণু ছড়াতে পারে।

নেইল কাটার
নেইল কাটার কখনওই অন্যেরটা ব্যবহার করবেন না। হাতের আঙ্গুলে, নখের মাঝে অনেকসময়েই নানা জীবাণু, ব্যাকটেরিয়া লেগে থাকে। নেইল কাটারের মাধ্যমে এই রোগ জীবাণু থেকে বড় ইনফেকশনও ছড়াতে পারে। অন্যের নেইলকাটারের থেকে ফাঙ্গাল ডিজিজ হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে।

কানের দুল

অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় যেন ম্যাচিং কানের দুল খুঁজে পাওয়া যায় না। তখনও দিদি হোক বা বন্ধুর কাছে দৌড়ে গিয়ে একটা কানের দুল নিয়ে আসি কমবেশি আমরা প্রত্যেকেই। কিন্তু অন্যের কানের দুল পরলে তা থেকে খুব সহজেই রোগ ছড়াতে পারে। তাই অন্যের কানের দুল পরলে রাবিং অ্যালকোহল দিয়ে ভাল করে মুছে পরিস্কার করে নিন তারপর পরুন।