বহুদিন পরে মাত্র কয়েক দিনের ছুটি পেলেন অফিস থেকে। ভাবতে বসেছেন কোথায় যাওয়া যায়! একবার তাহলে চোখ বুলিয়ে নিন এই ৫টি জায়গায়। হাতে অল্পদিনের ছুটি থাকলেই মাথায় হাত পরে সকলের। এটা ভাবতেই সময় চলে যায় কোথায় যাওয়া যায় এই অল্প সময়ের মধ্যে। যাতে এইরকম পরিস্থিতির সময় সহজেই সমাধান পেতে পারেন, তার জন্য একবার দেখে নিন এই জায়গাগুলো। মাত্র এক দিনে এবং খুব অল্প খরচেই ঘুরে আসতে পারবেন এই জায়গা গুলো থেকে।

ব্যারাকপুরঃ নামটা শুনে অনেকেই ভাবছেন তো ব্যারাকপুরে আর কি ঘুরবো! রোজ যাতায়াতের সময়েই তো পরে। কিন্তু ব্যারাকপুরে যে এমন অনেক ঘোরার জায়গা আছে তাজ্জব হতে হবে সকলকে। কলকাতা থেকে মাত্র ২৭.৫ কিলোমিটার দূরে এই ব্যারাকপুরের গা ঘেঁষে বয়ে যাচ্ছে হুগলী নদী। এই হুগলী নদীকে ঘিরে গড়ে উঠেছে গান্ধীঘাট। যা মন ভাল করে দেবে সকলের। এছাড়াও এখানে আছে বারথেলোমিউ ক্যাথিড্রাল, জহরকুঞ্জ গার্ডেন, মঙ্গল পাণ্ডে পার্ক।

 

মাছরাঙা দ্বীপঃ যদি একান্তে কিছুদিন কাটাতে চান তাহলে যেতেই পারেন এই মাছরাঙা দ্বীপে।কলকাতা থেকে মাত্র ৭১.৯ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই দ্বীপ অন্যান্য সব দ্বীপের থেকে অনেকটাই আলাদা। ইছামতির মাঝখানে অবস্থিত এই দ্বীপের কাছেই বাংলাদেশ। এখান থেকে আপনি দেখতে পারবেন বাংলাদেশি জেলেদের মাছ ধরতেও। তার মানে বুঝতেই পারছেন ওখান থেকে কতটা কাছে বাংলাদেশ। যদি অ্যাডভেঞ্চার পছন্দ করেন তবে ওখানে পেয়ে যাবেন ম্যানগ্রোভের ঘন জঙ্গল সাথে পাবেন একরাশ মাছ মাছরাঙার দর্শণও। ঘন জঙ্গলে দেখা মিলবে আরও বিভিন্ন ধরনের পশু-পাখিরও। 

সুন্দরবনঃ কলকাতা থেকে মাত্র ১০০ কিলোমিটার দূরে যদি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের দেখা পেতে চান তাহলে বেড়িয়ে পড়ুন সুন্দরবনের উদ্দশে। বঙ্গোপসাগরের সুন্দরবন বলতেই আমাদের যা মনে পড়ে তা হল ম্যানগ্রোভের ঘন জঙ্গল। জলে কুমির আর ডাঙায় বাঘ। যদি একসাথে এত কিছুর দেখা পেতে চান তাহলে গন্তব্যের মধ্যে রাখতেই হবে সুন্দরবন। এছাড়াও এখানে গেলে দেখা মিলবে হরিণ, বড় কাঁকড়ারও।

বকখালিঃ দীঘা অনেকেরই পছন্দের তালিকায় থাকে না সেক্ষেত্রে বকখালির কথা একবার ভেবে দেখতেই পারেন। ভারতের মধ্যে একমাত্র এখানেই সাদা বালি দেখতে পাওয়া যায়।  এখানকার বিশালাক্ষী মন্দিরটিও দেখবার মত। কলকাতা থেকে মাত্র  ১২৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই বকখালির পরিবেশ অত্যন্ত মনোরম। 


   
হেনরি দ্বীপঃ নামটা শুনে চমকানোর কিচ্ছু নেই। নাম শুনে বিদেশি কোন দ্বীপ মনে হলেও কলকাতা থেকে এই দ্বীপের দূরত্ব মাত্র ১২৭ কিলোমিটার। বঙ্গোপসাগরের পাশে অবস্থিত এই দ্বীপে শীতের সময় গেলে দেখা মিলবে বিভিন্ন ধরনের পরিযায়ী পাখির। এছাড়াও এই দ্বীপের চারপাশে আছে ম্যানগ্রোভ অরণ্য।