অল্প বয়সেই চুলে ধরছে পাক। ফলেই অফিসে বন্ধুদের মাঝে অস্বস্তিতে পড়তে হচ্ছে। সমস্যার সূত্র কোথা থেকে না বুঝেই তরিঘড়ি পার্লারের পথে পা বাড়ান সকলে ছুটির দিন। নয়তো বাড়িতেই চুল কালো করে ফেলছেন সকলে। কম বয়সে চুল পাকার সমস্যা এখন নতুন নয়। ২৫-এর গণ্ডি পার করতে না করতেই চুলে পাক ধরার ফলে বেজায় চিন্তার ভাঁজ অনেকের কপালে।

আরও পড়ুনঃ বাড়ছে তল পেটের মেদ, রইল কমিয়ে ফেলার সহজ উপায়

জানুন কোন উপায় নিয়ন্ত্রণে থাকবে চুল পাকার সমস্যাঃ
১. আমলকি খেলে চুল পাকার সম্ভাবনা কমে যায়। শুধু তাই নয় এতে চুল ভালোও থাকে।
২. আদা মধুর সঙ্গে মিশিয়ে তা চুলে লাগান স্নানের আগে প্রতিদিন। মিলবে সহজেই সমাধান।
৩. নারকেল তেলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন লেবুর রস। তারপর তা মাথায় লাগিয় রাখুন বেশ কয়েক মিনিট। মিলবে সুফল।
৪. ঘি চুলের উপকার করে অনেকভাবে। তাই ঘি দিয়ে চুলের মাসাজ করুন। এতে চুল চকচকেও হবে।
৫. কারকেল তেল গরম করার সময় তাতে কারি পাতা ফেলে দিন। ফুটিয়ে নিয়ে চুলে লাগান। এতে মিলবে সুফল।
৬. কিছুটা পেঁয়াজ রস করে রাখুন। এবার এটি চুলে লাগান নিয়মিত। এতে চুলের পাকা ভাব তো কমবে বরং চুল ঘনও হবে এতে।
৭. হাফ কাপ টক দইতে এক গ্রাম গোলমোরিচ মিশিয়ে নিন। তাহলেই চুল ভালো হবে, এবং পাকা ভাব কমে যাবে।
৮. পাকা চুল টেনে তুলবেন না, তা গোড়া  থেকে কেটে দিন। এতে চুল পাকার পরিমাণ কমে যায়।
৯. এক কাপ লিকার চা-তে এক চামচ নুন মিশিয়ে তা চুলে ও মাথায় লাগিয়ে নিন। এক ঘন্টা রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন মিলবে সুফল।
১০. বাদাম তেল, আমলকির রস ও লেবুর রস চুলে লাগিয়ে রাখলে চুল কম পাকে।