ঠান্ডা এখনও আসেনি তবু এই সময় থেকেই দেখা দিয়েছে শুষ্ক ত্বকের সমস্যা। শীতকালের সবথেকে বড় সমস্যা হল ত্বকের রুক্ষতা। এই সময় শুষ্ক শীতল হাওয়ায় ভেসে বেড়ায় ধূলো-বালি। এই কারনেই অতি সহজে ত্বক ফেটে যাওয়া থেকে শুরু করে ব়্যাশ এর মত সমস্যাও দেখা দেয়। শীতকালে ত্বকের জৌলুস বজায় রাখতে যত্ন নিন এখন থেকেই। 

আরও পড়ুন- চোখ লাল হয়ে ফুলে উঠলে অবহেলা নয়, হতে পারে এই মারাত্মক সমস্যা

এই সময় ত্বকের প্রয়োজন বাড়তি যত্ন। তাই শুষ্ক ত্বকের সমস্যা থেকে রেহাই পেতে মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলি। আর ফিরে পান দিপ্তীময় ত্বক শীতকালেও। শীতকালে ত্বক খুব দ্রুত আদ্রতা হারিয়ে ফেলে। একইভাবে শীতকালে স্নানের সময় বেশিরভাগ সময়ে যেহেতু গরম জল ব্যবহার করা হয় তাই ত্বক আরও দ্রুত আদ্রতা হারিয়ে ফেলে। এই সময় ঝকঝকে দিপ্তীময় ত্বক পেতে রূপচর্চায় রাখুন মরশুমি ফল কমলা লেবু। কমলালেবু কীভাবে কাজে লাগাবেন রূপচর্চায়, জেনে নেওয়া যাক-

আরও পড়ুন- দুনিয়া মজেছে এই চায়ের স্বাদে, এবার বাড়িতেই আড্ডা জমুক তন্দুরি চায়ের সঙ্গে

ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে কমলালেবু। কমলালেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা ত্বকে সতেজ রাখতে সাহায্য করে। ফলে বলিরেখা দূর হয় সহজেই আর ত্বক হয় ওঠে ঝকঝকে। এরজন্য কমলা লেবুর খোসা শুকিয়ে গুড়ো করে দুধের সঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে প্যাকের মত ব্যবহার করুন। শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার এই পদ্ধতি ব্যবহার করলে ত্বক হয়ে উঠবে দিপ্তীময়।

কমলা লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড ব্রণর সমস্যা দূর করতে দারুন কার্যকারী ভূমিকা পালন করে। এর জন্য কমলা লেবুর রস নিয়ে ব্রণ উপর লাগিয়ে রেখে দিন। শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন এইভাবে লেবুর রস লাগাতে পারলে, ব্রণ খুব দ্রুত শুকিয়েও যাবে, পাশাপাশি ব্রণর জেদি কালো দাগও মিলিয়ে যায়।

ত্বকের ট্যান ভাব কাটাতেও ব্যবহার করতে পারেন কমলা লেবুর রস। এর জন্য টক দইয়ের সঙ্গে কমলা লেবুর খোসার গুঁড়ো মিশিয়ে ঘন পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। এরপর প্যাকের মত সেই পেস্ট মুখে লাগিয়ে অন্তত ৩০ মিনিট রেখে দিন। এরপর ভালো করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। চটজলদি উজ্জ্বল ত্বক পেতে এই পেস্ট ব্যবহার করতে পারেন।