বাজার চলতি কেমিক্যালের উপর ভরসা না করে আস্থা রাখুন ঘরোয়া উপাদানে। ত্বকের কোনও বাড়তি ক্ষতি না করেই চালাতে থাকুন রূপচর্চা। নিঁখুত সৌন্দর্যের জন্য প্রয়োজন স্বাস্থ্যজ্জ্বল এবং জেল্লাদার ত্বক। এর জন্য অনেকেই শ্মরনাপন্ন হন পার্লারের। আর পার্লারে গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়া মানেই গাদা গাদা টাকা খরচের পালা। সঠিক পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিতে পারলেই থমকে যাবে আপনার বয়স। জানলে অবাক হবেন আপনার ত্বকের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান লুকিয়ে রয়েছে পেঁয়াজে। এটি শুধু রান্নাতেই নয় সমান ভাবে কাজে দেয় রূপচর্চার কাজেও।

আরও পড়ুন- ফেশিয়াল করার আগে এই পাঁচটি বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখুন

পেঁয়াজে রয়েছে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, সালফার, ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার ও পটাশিয়াম। পেঁয়াজের এত পুষ্টিগুণের জন্যই পুষ্টিবিদরা রোজ একটু হলেও কাঁচা পেঁয়াজ খেতে বলেন। জ্বর-সর্দি থেকে শুরু করে তাই রূপচর্চাতেও পেঁয়াজের জুড়ি মেলা ভার।

আরও পড়ুন- জলের বোতলের নিচের সাংকেতিক চিহ্ন আসলে এক একটা সাবধানবাণী, জানুন বিস্তারিত

পেঁয়াজে রয়েছে ভিটামি সি যা মুখের কাল জেদী দাগ বা পিগমেন্টেশন দ্রুত কমাতে সাহায্য করে। এর জন্য পেঁয়াজের রসের সঙ্গে এক চিমটে হলুদ ভালো করে মিশিয়ে প্রতিদিন স্নানের আগে মুখে ম্যাসাজ করুন। আর তফাৎটা নিজেই বুঝতে পারবেন।

পেঁয়াজে রয়েছে পরচুর পরিমানে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ত্বককে রক্ষা করে সূর্যের অতি বেগুনী রশ্মি থেকে। এছাড়া নিয়মিত পেঁয়াজের রস ত্বকে ব্যবহার করলে ত্বকের জেল্লা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। পেঁয়াজে থাকা ভিটামিন ত্বককে করে তোলে প্রাণবন্ত।

আরও পড়ুন- সুস্থ থাকতে কখনই অন্যের এই জিনিসগুলো ব্যবহার করবেন না

ব্রণ বা ফুসকুড়ি কমাতে পেঁয়াজের রসের সঙ্গে মিশিয়ে নিন সামান্য অলিভ বা আমন্ড ওয়েল। এই মিশ্রনটি প্যাকের মত মুখে মেখে ২০-২৫ মিনিট রেখে তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। দ্রুত আপনার ব্রণ বা ফুসকুড়ির সমস্যা কমে যাবে।

টোনারের মত ব্যবহার করুন পেয়াজের রস। তুলোয় করে মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকের কোষগুলোয় রক্ত সংবহন ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।