ইয়ামাহা মোটরের নতুন সংযোজন আসছে বাজার মাত করতে- এফ জেড ২৫ যার মধ্যে থাকছে বিএস ৬ নিয়মসিদ্ধ ইঞ্জিন।  এর সঙ্গে সঙ্গে আরও একটি ধরণ এফজেডএস ২৫ মডেলেরও আত্মপ্রকাশ ঘটল। এই মডেলের মধ্যেও থাকছে নতুন নতুন সরঞ্জাম ও এস ৬ নিয়মসিদ্ধ ইঞ্জিন। রঙের নানা বিকল্প থাকছে এই দুই বাইকের মডেলেই। এফ জেড ২৫ লঞ্চ হতে পারে এই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে আর এফজেডএস ২৫ লঞ্চ হবে এই বছরের শেষের দিকে।

ভারতে ইয়ামাহা মোটরের জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে ভারতীয় বাইকারদের জন্য নতুন অভিজ্ঞতা স্বাদ এনে দিতে পারার অঙ্গীকার নিয়ে এই দুই বাইক নির্মিত হয়েছে। নতুন আঙ্গিক যাতে বিশ্বের বাইক দুনিয়ার সঙ্গে মানানসই হয় সে কথা মাথায় রেখে নতুন স্টাইল, রঙ, ইঞ্জিন ব্যবহৃত হয়েছে। ইয়ামাহা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে যে ভারতীয় রাস্তায় ভারতের বাইকার ও রেসাররা যাতে বিশ্বমানের রেসিং করার অনুভূতি উপলব্ধি করতে পারেন তার জন্যই এই বাইকের জন্ম। ভারতে তাদের ব্র্যান্ড কমিট্মেন্ট বজায় রাখতে ইয়ামাহা বদ্ধ পরিকর।

এফজেড ২৫ বাইকের স্টাইলের পরিবর্তন লক্ষণীয়- পরিমার্জিত হেডল্যাম্প ক্লাস্টারে থাকছে বাই-ফাংশানাল ট্রিট্মেন্ট ও এলইড ইউনিট। নেগেটিভ এলসিডি ডিসপ্লে থাকছে, আন্ডারবেলি কওল এবং একটি সাইড-স্ট্যান্ড ইঞ্জিন কাট-অফ সুইচ যোগ করা হয়েছে নতুন করে।  এই পুরুষালি চেহারার বাইকের রঙে দুটি বিকল্প আছে- মেটালিক ব্ল্যাক ও রেসিং ব্লু। নতুন এফজেডএস ২৫ -এ থাকছে অনেকগুলো রঙের বিকল্প- গাঢ় সায়ান (সবজে নীল), গাঢ় নীল, ধাতব সাদা রঙ। প্রথম দুটি রঙের মডেলে থাকবে সোনালি রঙের  অ্যালয় হুইলস।

ইয়ামাহা এফজেড ২৫ বাইকে একইরকম ২৪৯ সিসি সিঙ্গল সিলিন্ডার থাকছে, ফুয়েল-ইঞ্জেক্টেড মোটর যা অবশ্যই বিএস৬ নিয়মসিদ্ধ। পাওয়ার আউটপুট ও একই থাকছে- ৮০০০ আরপিএম-এ ২০.৫ বিএইচপি এবং ৬০০০ আরপিওএম-এ ২০.১ এনএম টর্ক। এই মোটরে ৫-স্পিড গিয়ার বক্স থাকবে।  আর বাদবাকি সব প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম আগের মতোই, যথা- টেলিস্কোপিক ফর্কস আপ ফ্রন্ট, একটি মোনোশক ইউনিট পিছন দিকে, পিছনের ডিস্ক ব্রেক্স দুদিকেই থাকছে, এবং ডুয়াল-চ্যানেল এবিএস। 

ইয়ামাহা এফজেড বিএস৪ -এর দাম ছিল ১.৩৩ লাখ টাকা, সুতরাং বিএস৬ ভার্সানের দাম ৮০০০-১০০০০ টাকা বেশি হবে আর এফজেডএস ২৫ মডেলটি প্রিমিয়াম মডেল, এর দাম এফজেড ২৫-এর থেকে কিছুটা বেশিই হবে।