কলকাতায় লকডাউন শিথিল হয়েছে অনেকটাই। স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে জীবন যাত্রা। শিথিল হলেও এখনও সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে তবেই চলছে বহু রেস্তোরাঁ। এদিকে করোনার ভয় জাঁকিয়ে বসার কারণেই অনেকেই বাড়িতে তৈরির খাবারই বেশি স্বচ্ছন্দ্য বোধ করছেন। করোনার জেরে এমন এক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, এর ফলে বাইরে খাওয়াই প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই এমন এক পরিস্থিতিতে ঘরে বসেই যাতে বিশেষ দিনগুলো পালন করা যায় তাঁর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে কলকাতার জনপ্রিয় স্বনামধণ্য রেস্তোরাঁ।

আরও পড়ুন- বড়দিন মানেই কেক, চতুর্থ প্রজন্ম ধরে আজও বিখ্যাত সালদানার কেক

তাই ভোজন রসিকদের জন্য ক্রিসমাস ও নিউ ইয়ার উপলক্ষে সুখবর নিয়ে এল শহরের স্বনামধন্য এবং জনপ্রিয় রেস্তোরাঁ অউধ ১৯৫০। অউধ ১৯৫০ রোস্তোরাঁর রাজকীয় পঞ্চব্যঞ্জন নিয়ে হাজির হচ্ছে নতুন বছর সেলিব্রেশনের জন্য। করোনা আবহে যাতে কোনওভাবেই এই উৎসবের আনন্দ নষ্ট না হয় তার জন্য এক বড় চ্যালেঞ্জ নিয়ে হাজির হয়েছে এই রেস্তোরাঁ। ক্রিসমাস ও নিউ ইয়ার উপলক্ষে সমস্ত লোভনীয় পদ সাজিয়ে নিয়ে প্রস্তুত থাকবে এই রেস্তোরাঁ। থাকবে অনলাইন ফুড ডেলিভারির ব্যবস্থাও। এই পরিষেবা পাওয়া যাবে সুইগি ও জোমাটো ফুড ডেলিভারি সংস্থার থেকে। থাকছে ক্রিসমাস ও নিউ ইয়ার উপলক্ষে সমস্ত স্পেশাল মেনু।

আরও পড়ুন- করোনা থেকে মুক্ত হয়ে সামনের বছর আবার মেতে উঠবে পার্কস্ট্রিট এর ফ্লুরিজ কেক ফেস্টিভ্যাল

জানা গিয়েছে ক্রিসমাস ও নিউ ইয়ার র জন্য বিশেষ এই সুবিধা দিতে এই রোস্তোরাঁ ভোজন রসিকদের জন্য রাখছেন তাদের বিশেষ আকর্ষণীয় পদগুলি। যার মধ্যে রয়েছে মাসরুম গালৌটি কাবাব, মটন গালৌটি কাবাব, মুর্গ জাফরানী কাবাব, মাহি সুগন্ধি কাবাব, রান বিরিয়ানি, অউধি হান্ডি বিরিয়ানি, অউধি পালক বিরিয়ানি, মোতি বিরিয়ানি, গোস্ত কুন্দন কালিয়া, গোস্ত ভুনা, চিকেন ইরানী,ইরানী লাসুঙ্গি পলক, পনির রেসালা, সাবজ কোফতা কালিয়া এর সঙ্গে থাকবে গাজরের হালুয়া।

 

অওধ ১৫৯০ এর আউটলেট

১) ২৩ / বি, দেশপ্রিয়া পার্ক পশ্চিম, ক্যারামেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিকটবর্তী, কলকাতা - ৭০০০২৬

২) হেমন্ত মুখোপাধ্যায় সরণি, লেক টেরেস, বালিগঞ্জ, কলকাতা - ৭০০০২৯

৩) প্লট নং ৮৬, সল্টলেক, সেক্টর - ওয়ান, ব্লক - সিডি, কলকাতা - ৭০০০৬৪

৪) ৩৩৫ যশোর রোড, কালিন্দী, কলকাতা - ৭০০০৮৯

সময়: দুপুর ১২ টা থেকে দুপুর ৩ টে বেজে ৩০ মিনিট ও সন্ধা ৬ টা ৩০ মিনিট থেকে রাত ১০ টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত

তারিখ: ২৪ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে চলবে ১ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত