সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর: স্রেফ বিজেপি করার অপরাধে পাঁচজনকে বেধড়ক মারধর! অভিযোগের তির খোদ এলাকার তৃণমূল বিধায়ক ও তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার করেছে রাজ্যের শাসকদলের স্থানীয় নেতৃত্ব। ফের নতুন করে উত্তেজনা ছড়াল পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরিতে।

আরও পড়ুন: করোনা-ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে উত্তাল রাজ্য়,পেট্রোলের দাম বৃদ্ধিতে পথে বাম-কংগ্রেস

করোনা আতঙ্কের মাঝেও রাজনৈতিক সংঘর্ষের বিরাম নেই। পুরভোটের আগে খেজুরিতে সম্মুখ-সমরে বিজেপি ও তৃণমূল। স্থানীয় জনকা গ্রাম পঞ্চায়েতের  গোড়াহাট-জলপাই গ্রামে রবিবার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দু'দলের সমর্থকরা। সকালে যখন এলাকায় বিজেপির কর্মসূচি চলছিল, তখনই গন্ডগোলের সূত্রপাত। গেরুয়াশিবিরের অভিযোগ,  পুলিশের উপস্থিতিতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা দলের কর্মী-সমর্থকদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়, বোমাবাজি করে। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হন দলের সাংগঠনিক জেলা সম্পাদক পবিত্র দাস। প্রতিবাদে  হেঁড়িয়ায়  নন্দকুমা থেকে দিঘাগামী জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। 

আরও পড়ুন: সপ্তাহজুড়ে বজ্রবিদ্যুত সহ ভারি বৃষ্টিপাত চলবে বাংলায়, তবে গরম থেকে নিস্তার নেই কলকাতাবাসীর

অভিযোগ,  সোমবার রাতে খেজুরির কামরাবাদ এলাকায় সোমবার রাতে চড়াও হন স্থানীয় তৃণমূল বিধায়কের অনুগামী। বিজেপি করার অপরাধে পাঁচজনকে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়। গেরুয়াশিবিরের দাবি, হামলাকারীদের সকলেই হাতে তৃণমূলের পতাকা ছিল। আক্রান্তদের ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। এদিকে বিজেপির বিরুদ্ধে বাইরে থেকে অস্ত্র আমদানি করে এলাকায় অশান্তি পাকানোর পাল্টা অভিযোগ করেছে তৃণমূলও।