শাজাহান আলি, মেদিনীপুর:  মদের আসরে বচসার জের? দুই বন্ধুকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ করল যুবক। বন্ধ দোকান ঘর থেকে দুটি দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মেদিনীপুর শহর লাগোয়া কেরানিচক এলাকায়।

আরও পড়ুন: বিষধর সাপের কামড়ের পর ওঝার ঝাঁড়ফুক, ফের কুসংস্কারের বলি তরুণী

মৃতেরা হলেন রাজেশ দাস ও তন্ময় মল্লিক। রাজেশ মেদিনীপুর শহর লাগোয়া কেরানীচক এলাকারই বাসিন্দা। আর তন্ময়ের বাড়ি শহরের আনন্দপুর এলাকার সাহসপুরে। পরিবারের লোকেদের জানিয়েছেন, কেরানীচক এলাকায় একটি ফুলের দোকান চালাতেন রাজেশ। তাঁর সহযোগী ছিল বিমল ও তন্ময়। কাজ সেরে শুক্রবার রাতে আর বাড়ি ফেরেননি কেউ। তিনজনে একসঙ্গে থেকে গিয়েছিলেন ফুলের দোকানেই।

আরও পড়ুন: কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা

শনিবার সকালে কেরানীচক এলাকার ওই দোকান থেকে রাজেশ ও তন্ময়ের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, শুক্রবার রাতে দোকান বন্ধু করে মদের আসর বসেছিলেন রাজেশ, তন্ময় ও বিমল। এরপর ব্যবসার পাওনা-গণ্ডা নিয়ে তিনজনের মধ্যে বচসা শুরু হয়। মদ্যপ অবস্থায় প্রথমে তন্ময়ের উপর ছুরি নিয়ে চড়াও হয় বিমল। তন্ময়কে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন রাজেশও। শেষপর্যন্ত দু'জনকে খুন করে দেহ রেখে দেওয়া হয় বন্ধ দোকানেই। ঘটনার কথা জানা গেল কীভাবে? পুলিশ জানিয়েছে, দুই বন্ধুকে খুন করার পর শনিবার সকালে থানায় গিয়ে ধরা দেয় বিমল নিজেই। দেহ দুটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। সিল করা দেওয়া হয়েছে দোকানটিও।