শাজাহান আলি, মেদিনীপুর: গ্রামের প্রান্তে বেড়ার বাড়িতে যে বোমা তৈরি করা হচ্ছিল, তা ঘৃণাক্ষরেও টের পাননি কেউ। আচমকা বিকট শব্দে বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল গোটা এলাকা। বিস্ফোরণের তীব্রতা উড়ে গেল বাড়িটির চাল, গুরুতর জখম হলেন তিনজন। প্রথমে চড়াও হয়ে মারধর করলেও, পরে তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান গ্রামবাসীরা। ঘটনাস্থল, পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতন।

আরও পড়ুন: ভোজ্য তেলের কারখানায় বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, বরাতজোরে রক্ষা পেলেন শ্রমিকরা

দাঁতন থানার অন্তর্গত রসুলপুর গ্রাম। সোমবার বিকেলে বিস্ফোরণের বিকট শব্দ শুনতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। কী হল? দেখা যায়, গ্রামের প্রান্তে একটি বেড়ার বাড়ির অ্যাসবেস্টস চুর্ণ-বিচুর্ণ পড়ে রয়েছে কিছুটা দূরে। বিস্ফোরণের জেরে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে বাড়ির ভিতরটাও। আর সেখানে রক্তাক্ত অবস্থায় যন্ত্রণার কাতরাচ্ছেন তিন যুবক।  এরপর তাঁদের ওপর চড়াও হয়ে মারধর করতে শুরু করেন ক্ষুদ্ধ জনতা। শেষপর্যন্ত ওই তিনজনকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় দাঁতন গ্রামীণ হাসপাতালে।

আরও পড়ুন: সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জের, বৃদ্ধ বাবা-মাকে 'বেধড়ক মার' পুলিশকর্মী ছেলের

রসুলপুর গ্রামের বাসিন্দাদের দাবি, আহতের সকলেই তৃণমূল সমর্থকরা। ওই বেড়ার বাড়িতে বসে বোমা বানাচ্ছিলেন তাঁরা।  তখনই কোনওভাবে বিস্ফোরণ ঘটেছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন দাঁতনের তৃণমূল বিধায়ক বিক্রম প্রধান। তিনি বলেন, আহতেরা দলের সমর্থক হলেও, কাউকে রেয়াত করা হবে না। বোমা কারবার যারা করছে, তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিক পুলিশ।