আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  রক্ষকই ভক্ষক! পুলিশকর্মীর ছেলের হাতে বেধড়র মার খেলেন বাবা-মা। রেহাই পেলেন না দাদাও। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই বৃদ্ধ দম্পতি ভর্তি হাসপাতালে। অভিযুক্ত পলাতক। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মল্লারপুরে।

আরও পড়ুন: ভোজ্য তেলের কারখানায় বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, বরাতজোরে রক্ষা পেলেন শ্রমিকরা

স্থানীয় সূত্রে খবর, অভিযুক্তের নাম রাজেশ গুপ্তা। কলকাতা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের এএসআই পদে কর্মরত তিনি। গত কয়েক মাস ধরে সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে রাজেশ, বৃদ্ধা বাবা-মা-এর উপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার চালাচ্ছিলেন বলে অভিযোগ। পরিস্থিতি চরমে পৌঁছায় রবিবার সন্ধ্যায়। দাদা রবি গুপ্তা বলেন,  'আমি রামপুরহাটে ব্যবসা করি। সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বাবা ফোনে জানায় ভাই মারধর করছে। আমি সঙ্গে সঙ্গে মল্লারপুরের বাড়িতে যায়। সে সময় ভাই আমাকেও লোহার রড, ধারালো অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে। লোহার রড দিয়ে বুকে, কোমরে এলোপাথাড়ি মারতে থাকে। বাবা, মা, কাকিমা, খুড়তুতো ভাইরা বাঁচাতে এলে তাঁদেরও মারধর করে।' শেষপর্যন্ত প্রতিবেশী এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

আরও পড়ুন: মহিলাদের কটুক্তির প্রতিবাদ করে আক্রান্ত দুই যুবক, গুলি চলল কাঁকিনাড়ায়

পরিবারের লোকেদের দাবি, ছেলের বিরুদ্ধে মল্লারপুর, এমনকী মহকুমাশাসক ও মহকুমার আধিকারিকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন রাজেশের বাবা। কিন্তু পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ার অত্যাচারে মাত্রা আরও বেড়ে গিয়েছে। দুটি আলাদা মামলা দায়ের তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তদন্তকারীদের দাবি, ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত রাজেশ গুপ্তা।